Home / আরো / খেলাধুলা / টেস্টে চলতি বছর ২০০ রানও করতে পারছে না বাংলাদেশ !

টেস্টে চলতি বছর ২০০ রানও করতে পারছে না বাংলাদেশ !

২০০ রান করতে ১০ জনের প্রতিজনে ২০ রান করলেই হয়। ৩২১ রান করতে ৩০ রান করে তুললেই চলে। এ তো সাধারণ হিসাব। কিন্তু ক্রিকেট মাঠে তো এসব হিসাবে চলে না। কিন্তু কিছু হিসাব অবশ্যই থাকে। সিলেটের অভিষেক টেস্টে জিম্বাবুয়ের কাছে বাংলাদেশের হারের প্রধান কারণ ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা। এই ম্যাচে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের কোনো পরিকল্পনা ছিল বলে মনে হয়নি একবারও!

দুই ইনিংসেই ব্যর্থতার সর্বোচ্চ ধাপ কি হতে পারে, তাই দেখিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-মুশফিকুর রহিম-ইমরুল কায়েসরা। দুই ইনিংসে বাংলাদেশের রান ১৪৩ ও ১৬৯ রান। অর্থাৎ আবারো ২শ রানের কোটা পেরোতে পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। চলতি বছর এই নিয়ে আটটি ইনিংসে ২শ রানের নিচেই থেমেছে বাংলাদেশর ইনিংস। এমন পরিসংখ্যান কপালে ভাঁজ ফেলে দেয়ার জন্য যথেষ্ট। অথচ রানের বন্যা দিয়ে চলতি বছর শুরু করেছিল বাংলাদেশ।

বছরের শুরুতে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ওই টেস্টে রানের ফুলকি ফুটিয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ইনিংসে মুমিনুল হকের ১৭৬ রানের সুবাদে ৫১৩ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাট হাতে উজ্জ্বল ছিল ব্যাটসম্যানরা। ৫ উইকেটে ৩০৭ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করার সাহস দেখিয়েছে। দ্বিতীয় ইনিংসেও ১০৫ রান করেন মুমিনুল। এছাড়া লিটস দাসের ৯৪ রানও ছিল। তাই ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় ওই টেস্টটি ড্র করতে পারে বাংলাদেশ।

কিন্তু এরপরই যেন টাইগার ব্যাটসম্যানরা খেই হারিয়ে ফেলে। পরবর্তীতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১টি ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি টেস্টের ৬ ইনিংসের কোনটিতেই ২শ রান করতে পারেনি বাংলাদেশ। ৬ ইনিংসে বাংলাদেশের দলীয় রান ছিল এমন- ১১০, ১২৩, ৪৩, ১৪৪, ১৪৯ ও ১৬৮। প্রথম দুটি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে, পরের চারটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।

বছরের শুরুতে ৫১৩ ও ৩০৭ রানের পর, পরের ৮টি ইনিংসে দলীয় স্কোর ২শ রানের ধারে কাছে যেতে পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা।

খেলাধুলা ডেস্ক

শেয়ার করুন

Leave a Reply