Home / চাঁদপুর / ঈদুল আযহায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা

ঈদুল আযহায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা

পবিত্র ঈদু আযহায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা রোববার (১৩ আগস্ট )সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মো.আব্দুস সবুর মন্ডলের সভাপতিত্বে গত বছরের কার্য বিবরণী পাঠ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আয়শা আক্তার।

সভায় উন্মুক্ত আলোচনায় গৃহীত সিদ্ধান্ত সমূহ হলো পবিত্র পবিত্র ঈদু আযহায় ঈদের দিন সরকারি বেসরকারি ভবন সমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন নিশ্চিত করতে হবে।

সূর্যাস্তের সাথে সাথে তা’নামিয়ে ফেলতে হবে। পবিত্র ঈদের দিন নতুন কাপড়ের তৈরি পরিচ্ছন্ন জাতীয় পতাকা ও ঈদ মোবারক খচিত বাংলা ও আরবিতে লেখা পতাকা দ্বারা শহরের পৌর পার্ক, ইলিশ চত্বর,শপথ চত্বর,কলেজ মাঠ ও পুরাণবাজার ঈদগাহ সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান সজ্জিত করার জন্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে দায়িত্ব দেয়া হয়।

ওই দিন জেলা ও উপজেলার হাসপাতাল,জেলাখানা,এতিমখানায় উন্নত খাবার পরিবেশন করা হবে। ঈদের দিন আবহাওয়া অনূকুল না থাকলে চাঁদপুর পৌর পার্কের ঈদের জামাত পাশ্র্ববর্তী চৌধুরী জামে মসজিদে প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে এবং অন্যান্য ঈদের জামাত নিকটবর্তী মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে।

ঈদের জামাতে ইমামতি করার জন্যে সংশ্লিষ্ট কমিটি ইমাম নিয়োগ করবে। কোনো বিতর্কিত ব্যক্তিকে ঈদের জামাতের ইমামতির জন্যে নিয়োগ দেয়া যাবে না।

ইমামগণ খোৎবায় জঙ্গিবাদ ও উগ্রবাদের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখবেন এবং আরবী খোৎবার বিষয় বস্তু বাংলায় তরজমা করে মুসল্লিদের শোনাবেন। একই সাথে দেশের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় মোনাজাত পরিচালনা করবেন।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে প্রধান ঈদগাহ,শহরের রাস্তঘাট এবং পৌর এলাকা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ও পর্যাপ্ত পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্যে চাঁদপুর পৌরসভাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

কোরবানিকৃত পশুর বর্জ্য পদার্থ যেখানে সেখানে ফেলে শহরের পরিবশে যাতে নষ্ট না হয় সে জন্যে কোরবানির পর পশুর বর্জ্য অপসারণের বিষয়ে স্ব-স্ব এলাকা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্যে কাউন্সলরদের নির্দেশ দেয়া হয়।

চাঁদপুর লঞ্চঘাট ও স্টীমার ঘাটে ঈদ ঘরমুখো যাত্রীরা অসুস্থ হলে জরুরি চিকিৎসা সেবা দেয়া জন্যে মেডিকেল টিম প্রস্তুত রাখতে সিভিল সার্জনকে বলা হবে। ঈদের সময় নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে বিদুৎ সরবরাহ করতে হবে। ঈদ উপলক্ষে লঞ্চ ও স্টীমার ঘাটে দু’জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট,আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ ও কোস্টগার্ড যোগাযোগ রক্ষা করবে।

সব উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাগণ ঈদুল আযহায় স্ব-স্ব উপজেলায় কর্মসূচি গ্রহণ করবে। ঈদের দিনে পাড়া-মহল্লায় কেউ পেন্ডেল সাজিয়ে মাইক,ডেকসেট উচ্চস্বরে বাজাতে না পারে সেদিকে পুলিশ প্রশাসন পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। ঈদুল আযহা উপলক্ষে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের নৌ-যান ও সদস্যগণকে প্রস্তুত রাখার নির্দেশ থাকবে।

ঈদের পূর্ব থেকে এবং পরবর্তী ক’দিন লঞ্চঘাটে সিএনজি স্কুটার চালকরা যাত্রী টানাহেঁচড়া না করতে পারে এবং যাত্রী হয়রানি না হয় সে জন্যে চালকদের নিয়ে চাঁদপুর নৌ-পুলিশ সভা করবে। লঞ্চঘাটের পল্টুনগুলো সম্পূর্ণভাবে হকার মুক্ত রাখতে হবে। কোনো লঞ্চ অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে যেন না পারে সেদিকে নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ড দৃষ্টি রাখবে।

যাত্রীদের চলাচলের সুবিধার্থে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে অতিরিক্ত পল্টুন স্থাপন করা প্রয়োজন। বিগত দিনের মতো জেলা স্কউস ও রোভার স্কাউট দায়িত্ব পালন করবে। পূর্বের ন্যায় ঈদ ঘনিয়ে আসলে লঞ্চ ঘাটের রাস্তা দ’ুটি ওয়ান ওয়ে করা হবে।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটিওয়ারী দুলাল,চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ এম এ মতিন মিয়া,সিভিল সার্জন ডা.মতিউল ইসলাম,নৌ-পুলিশ সুপার সুব্রত হালদার,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফজাল হোসেন,চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শরিফ চৌধুরী,সাাবেক সাধারণ সম্পাদক সোহেল রুশদি,বাবুর হাট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোশারফ হোসেন,চাঁদপুর টেকনিক্যাল স্কুলের অধ্যক্ষ মো. সোলায়মান,আক্কাস আলী রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধানশিক্ষক গোফরান হোসেন প্রমুখ।

প্রতিবেদক : মাজহারুল ইসলাম অনিক
:আপডেট,বাংলাদেশ সময় ৮:০০ পিএম,১৩ আগস্ট ২০১৭,রোববার
এজি

শেয়ার করুন
x

Check Also

Potato biz

অসময়ের বৃষ্টিতে চাঁদপুরে আলু চাষীদের হাহাকার

অসময়ের ...