Home / সারাদেশ / জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০ তম জন্মবার্ষিকী

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০ তম জন্মবার্ষিকী

আজ শনিবার (২৫ মে ) ১১ জ্যৈষ্ঠ সাম্যের কবি,বিরহ-বেদনার কবি,বিদ্রোহের কবি বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০ তম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কবির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে নজরুলের লেখনী ধূমকেতুর মতো আঘাত হেনে জাগিয়ে দিয়েছিল ভারতবাসীকে। বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে  ‘বিদ্রোহী কবি’  এবং আধুনিক বাংলা গানের ‘বুলবুল’ নামে খ্যাত কাজী নজরুল ইসলাম বিশ শতকের বিশ ও ত্রিশের দশকে উপমহাদেশের অবিভক্ত বাংলার সাংস্কৃতিক জগতে সবচেয়ে বর্ণাঢ্য ব্যক্তিত্ব ছিলেন। দ্রোহ, প্রেম, মানবতা কবির রচনাকে করেছে চিরন্তন, নিয়ে গেছে গণমানুষের কাছাকাছি।  কবিতায় বলেছেন,‘গাহি সাম্যের গান; মানুষের চেয়ে বড় কিছু নাই, নহে কিছু মহীয়ান…’।

কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম বাংলা ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬ সালে ( ১৮৯৯ খ্রিস্টাব্দে) পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামে। তার পিতার নাম কাজী ফকির আহমেদ,মা জাহেদা খাতুন। ১৯৭২ সালের ২৪ মে তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উদ্যোগে কবি সপরিবারে বাংলাদেশে আসেন। বাংলাদেশ সরকার কাজী নজরুল ইসলামকে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব প্রদান করেন এবং জাতীয় কবি হিসাবে ঘোষণা দেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশেই ছিলেন।

কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ত্রিশাল,ঢাকা, কুমিল্লা, চুয়াডাঙ্গা ও মানিকগঞ্জে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ত্রিশালে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শনিবার  ২৫ মে  প্রধান অতিথি থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি। এতে সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। এ ছাড়া রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান,সংস্থা,সংগঠন নানা অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করবে।

এদিকে নজরুল একাডেমি  শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে দু ‘দিনের বিশেষ অনুষ্ঠানমালা। আজ শনিবার অনুষ্ঠানের সমাপনি দিন। বিটিভিসহ বেসরকারি চ্যানেলগুলো নানা অনুষ্ঠান সমপ্রচার করবে। জাতীয় দৈনিক পত্রিকাগুলো কবির ওপর বিশেষ সংবাদ ও নিবন্ধ পরিবেশন করবে।

বার্তা কক্ষ
২৫  মে ২০১৯

এজি