Home / চাঁদপুর / দক্ষতা আর প্রচারণার অভাবে নিস্ক্রিয় চাঁদপুর অনলাইন ইলিশ বাজার

দক্ষতা আর প্রচারণার অভাবে নিস্ক্রিয় চাঁদপুর অনলাইন ইলিশ বাজার

চাঁদপুরবাসীসহ দেশ ও বিদেশের ইলিশপ্রিয় মানুষদের চাহিদার পূরণে চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছঘাট এলাকায় অনলাইন ইলিশ বাজার কার্যক্রম চালু হয়। বর্তমানে সঠিকভাবে প্রচারণ-প্রসারণা না হওয়ায় এটি এখন নিস্ক্রিয় অবস্থায় রয়েছে।

জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগলে সার্চ দিলে দেশের বিভিন্ন স্থানে থাকা ইলিশ বাজারের নাম থাকলেও নেই চাঁদপুর অনলাইন ইলিশ বাজার। দক্ষ পরিচালক ও ওয়েব এসইও না থাকায় এ সাইটটির কোনো অস্তিত্ব কোনো সার্চ ইঞ্জিনি পাওয়া যায়নি। সাইটটি অনুসন্ধানে প্রতিষ্ঠানটির সাইনবোর্ডেও কোনো লিংক/ওযেব ঠিাকানা নেই। এছাড়া অনলাইন দুনিয়ায় কোথায়ও এ সাইটের বিজ্ঞাপন নেই। এতে ইলিশের বাড়ি চাঁদপুরের বাসিন্দারাও জানেন না এর ওয়েব সাইট ঠিকানা কোনটি।

যদিও সংশ্লিষ্টরা দাবি করছেন দেশের প্রথম অনলাইন ইলিশ বাজার হিসেবে এটি স্থাপন হলেও প্রশাসনিক, সামাজিকসহ সর্বস্তরের মানুষের সহযোগিতার অভাবে এটি সফলতার মুখ দেখছে না।

ব্র্যান্ডিং জেলার অংশ হিসেবে জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় অনেকটা তড়িঘড়ি করে গেলো বছরের ২৩ নভেম্বর ঝাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এনএম জিয়াউল এবং চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমীন এর উদ্বোধন করেন। এ সময় চট্রগ্রাম বিভাগীয় ৮ জেলার প্রশাসক ও স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

ওইসময় চাঁদপুরের অনলাইন ইলিশ বাজার থেকে দেশ এবং দেশের বাইরে থেকে অনলাইনের মাধ্যমে ক্রেতারা তাদের পছন্দের মাছ কিনতে পারবেন। এমন কার্যক্রম দেশের আর কোথাও এখনো চালু হয়নি। অনলাইন ইলিশ বাজারের মাধ্যমে ক্রেতারা তাদের সুযোগ সুবিধা পাবেন। এখানে যেসব মাছ থাকবে তার সবগুলোর দাম নির্ধারণ করা থাকবে। এ বাজারে চাঁদপুরের বিভিন্ন প্রজাতির মাছও বিক্রি করা হবে। ক্রেতরা দেশে কিংবা দেশের বাইরের থেকে অনলাইনের মাধ্যেমে মাছ বুকিং দেয়া যাবে। তাদের সেই পছন্দের মাছ খুব সহজেই ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে।

এছাড়া চাঁদপুরে ইলিশ নিষিদ্ধ সময়ে অনলাইন কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। যখন নিষিদ্ধ সময় মেষ হবে তখন থেকে আবার অনলাইনে মাছ বিক্রির কার্যক্রম শুরু হবে।
এসব প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে তখন এটি চালু করা হলেও বর্তমানে এর বাস্তবয়ন অনেকাংশেই নেই।

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে গিয়ে দেখা যায় চাঁদপুর মাছঘাটে ইলিশের রমরমা আমাদানী ও বেচাকেনা, দাম মধ্যবিত্ত ক্রেতাদের নাগালে থাকায় উপচে পড়া ভিড় থাকলেও ঝিমিয়ে আছে অনলাইন ইলিশ বাজার। মাছঘাটের পাশেই থাকা এ প্রতিষ্ঠানটিতে গিয়ে দেখা যায়, একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার বন্ধ অবস্থায় পড়ে আছে, নেই কোনো অপারেটর। পাশে বসে আছেন পাঁচজনে মধ্যে এক পরিচালক ইদ্রিস আলী খান।

বর্তমান ইলিশ বেচাকেনা ও অনলাইন ইলিশ বাজারের কার্যক্রম সম্পর্কে তিনি চাঁদপুর টাইমসকে বলেন, ‘বিদেশ থেকে চাঁদপুরের ইলিশের জন্যে অনেক ফোন পেয়ে থাকি, কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে ইলিশ রফতানি বন্ধ রয়েছে। যদি সরকারের মাধ্যমে রফতানির ব্যবস্থা চালু করা হয়, তাহলে চাঁদপুরের রূপালি ইলিশের চাহিদা ব্যাপক বাড়বেও অনলাইন ইলিশ বাজারের উদ্দেশ্য সফল হবে।’

তিনি আরো বলেন, মৌসুমে দিনপ্রতি ১শ’ মন মাছ বিক্রি টার্গেট থাকলেও প্রচার-প্রসারণার অভাবে বর্তমানে ২০-২৫ কেজি মাছ বিক্রি হয়। যার মাধ্যমে টার্গেট পূরণ আদৌ সম্ভব নয়। পর্যাপ্ত বিক্রি না হওয়ায় আড়াই থেকে তিন মণ মাছ ফ্রিজিং করা অবস্থায় স্টোকে পড়ে রয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন, বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও অনলাইন ব্যবহারে সচেতন যারা তারা প্রতিদিন যে পরিমাণ ইলিশ আড়ত ও অন্যান্য খুচরা বাজার থেকে ক্রয় করেন, সে পরিমাণ ইলিশ অনলাইন থেকে ক্রয় করলে আমাদের এ সেবাটি সার্থক হবে এবং অনলাইন ইলিশ বাজারের প্রচারণাও বাড়বে।’

এদিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অনলাইন ইলিশ বাজারে ৭শ’ থেকে সাড়ে ৯শ’ এবং ৫শ’ থেকে ৬শ’ টাকা কেজি ধরে ইলিশ বিক্রি হচ্ছে। এর মধ্যে ১ কেজি ওজনের একটি ইলিশ ১১শ’ তার উপরে ১২শ’ থেকে ১৪শ’ টাকা অনলাইন ইলিশ বাজার থেকে বর্তমানে বিক্রয় করা হচ্ছে। বরফ, ককশীটে প্যাকিং ও পরিবহন ব্যয় ক্রেতাকে বহন করতে হয়।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যদি অনলাইন দক্ষ জনবল দিয়ে পরিচালনা না করেন তাহলে ব্র্যান্ডিং জেলার এ বাজার মুখ থুবড়ে পড়বে। চাঁদপুর টাইমস পাঠকদের স্বার্থে সাইটের লিংকটি প্রকাশ করা হলো-www.chandpurilish.com

প্রতিবেদক- মাজহারুল ইসলাম অনিক, সিনিয়র স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
: আপডেট, বাংলাদেশ ২: ৪০ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ মঙ্গলবার
ডিএইচ

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

montri sova

একনেকে ৪৯৭৯ কোটি টাকার ৮ প্রকল্প অনুমোদন

পরিবেশসম্মত ...