Home / চাঁদপুর / বিদেশগামী ৩১ হাজার যুবককে প্রশিক্ষণ দিলো চাঁদপুর মেরিন টেকনোলজি
marine-academy
চাঁদপুর মেরিন একাডেমি

বিদেশগামী ৩১ হাজার যুবককে প্রশিক্ষণ দিলো চাঁদপুর মেরিন টেকনোলজি

মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের ২৬ দেশের শ্রমবাজারে প্রবেশের ক্ষেত্রে করণীয় সম্পর্কে জানার জন্যে ২০১৭ সালের জুলাই হতে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চাঁদপুরের ৩১ হাজার ৭শ ১৮ জনকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে ‘ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি’।

চাঁদপুর ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির বর্তমান অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো.আলী আকবর চাঁদপুর টাইমসকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তাঁর দেয়া তথ্য মতে, ২০১৭ সালের জুলাই মাসে এর যাত্রা শুরু। এ সালে ৬,৯৬২ জন, ২০১৮ সালে ২১,৭৪৩ জন এবং ২০১৯ সালে জানুুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি এ দু’মাসে ৩ হাজার ১৩ জন ৩ দিনের একটি বর্হিগমন বিষয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। বিদেশগামী একজন যুবক যে দেশের ভিসায় যাবেন সেই বিষয়ে স্যমক ধারণা লাভে ফিঙ্গার টেস্ট হওয়ার পর তাৎক্ষণিক এ প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য চাঁদপুর ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজিতে ৩ দিনের প্রশিক্ষণের জন্যে আসতে হয়।

চাঁদপুর-রায়পুর সংযোগ সেতুর পশ্চিম পাশে অবস্থিত চাঁদপুর ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির প্রশিক্ষণের পরই গমনোচ্ছুকর্মীদের মধ্যপ্রাচ্যসহ ২৬ টি দেশে প্রবেশ করার ক্ষেত্রে এটি একটি ধাপ।

যে কোনো বেকার যুবক শ্রমিক হিসেবে মধ্যপ্রাচ্যসহ ২৬ দেশের শ্রমবাজারে গমনেচ্ছুক বা প্রবেশে কর্মীদের ওরিয়েন্টেশন কোর্স নামে ফিঙ্গার প্রিন্টি দেয়ার পর ৩ দিনের এ প্রশিক্ষণ জেলাভিত্তিক ‘চাঁদপুর ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি ’ থেকে গ্রহণ করার সনদ না থাকলে বিমান বন্দরেই সে আটকে যাবে।

সরকারিভাবে চাঁদপুরের ‘ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি ’ প্রতিষ্ঠানটি জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো কর্তৃক পরিচালিত এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন এ প্রতিষ্ঠানটি ।

চাঁদপুরের ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজি বিদেশে গমনেচ্ছুকর্মীদের সপ্তাহে দু’টো করে মাসে ৮ টি ব্যাচে প্রশিক্ষণ ও সনদ প্রদান করছেন বলে বুধবার (১৩ মার্চ) চাঁদপুর টাইমসকে তিনি জানান।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, ২০১৭ সালের জুন থেকে প্রত্যেক বিদেশ শ্রমজীবীকে ৩ দিনের ওরিয়েন্টেশন কোর্সটির প্রশিক্ষণ নিতে হয়। এ পর্যন্ত সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ও মালোয়েশিয়ায় ৫০% শ্রমজীবী পুরুষ ও নারী কর্মসংস্থানের সুযোগ পেয়েছেন কিংবা কাজের উদ্দেশ্যে বিদেশে যেতে পেরেছেন।

সুত্রটি আরো জানায়, প্রত্যেক বিদেশ গমনেচ্ছুককর্মী যে দেশে যাবেন সে দেশের ভিসা নিশ্চিত হওয়ার পর জনশক্তি,কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো কর্তৃক পরিচালিত চাঁদপুরের স্টেডিয়ামের পশ্চিম পাশে অবস্থিত সাবেক বিএভিএস ভবনের দ্বিতীয় তলায় ফিঙ্গার টেস্ট সম্পন্ন হওয়ার পর পরই তাকে ২ শ’ টাকা ফি দিয়ে ৩ দিনের এ ওরিয়েন্টেশন কোর্সটি সম্পন্ন করতে হয়।

তবে বর্তমানে ফিঙ্গার টেস্টের ক্ষেত্রে বিষয়টি শিথিল করে বিদেশ গমনেচ্ছুককর্মীর পাসপোর্ট থাকলেই ওরিয়েন্টেশন কোর্সটি সম্পন্ন করার সুযোগ পাচ্ছে।

চাঁদপুরের ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজির অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো.আলী আকবর চাঁদপুর টাইমসকে বলেন,‘ সরকারি নির্দেশে বিদেশ যাওয়ার ক্ষেত্রে ডাটা তৈরি, নিবন্ধন , ফিঙ্গার টেস্ট, পাসপোর্স্ট পরিচিতি ও নম্বর, দূতাবাসের সকল ধরনের সুবিধা পেতে, প্রবাসে অবস্থান কালে যে কোনো সমস্যা সমাধানে, ওয়ার্ক ভিসা, বিমানে উঠার পর কী করণীয়, কর্মক্ষেত্রে যোগদানের পর কী কী করবে বা কী কী করতে পারবে না, সংশ্লিষ্ট দেশের ভাষা ও আবহাওয়া, ভিসা পুন:যাচাই-বাচাই, বিমান বন্দরের প্রবেশের আগে ইমিগ্রেশান কার্যক্রমে করণীয়, প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে দূতাবাসের সাথে যোগাযোগ, উপার্জিত টাকা প্রেরণের পদ্ধতি প্রভৃতি ক্ষেত্রে এ কোর্স গ্রহণ কালে ধারণা প্রদান করা হয়।’

এছাড়াও বিদেশ গমনেচ্ছুককর্মীর সকল ডাটা সংরক্ষণে চাঁদপুরের এ ইনস্টিটিউট অব মেরিনটেকনোলজি প্রতিষ্ঠানটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করছে। বিদেশে যেকোনো বিমান বন্দরে তার পাসপোর্ট নাম্বারে ক্লিক করলেই ঔ যুবকের সকল ডাটা ইমিগ্রেশান কর্মকর্তাগণ জেনে যাবে এবং তার আগমনের বৈধতা সম্পর্কে পরিষ্কার তথ্য জানতে পারবে। ফলে কোনো ঝামেলা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।

২০১৭ সালের আগে একজন বিদেশ গমনকারীকে বাধ্যতামূলক এ প্রশিক্ষণটির জন্যে ঢাকায় এবং পরবর্তীতে কুমিল্লায় দিনের পর দিন অফিসের বারান্দায় বসে কিংবা রাত অতিবাহিত করতে হতো । বর্তমানে চাঁদপুরের বিদেশগামী মানুষ জেলা শহরেই এ সুযোগ পাচ্ছে। তাই কোনো বিদেশগামী অবৈধভাবে গেলে তার দুঃখের কোনো সীমা থাকে না।

প্রতিবেদক : আবদুল গনি
১৪ মার্চ, ২০১৯