Home / উপজেলা সংবাদ / চাঁদপুর সদর / চাঁদপুরে ৪ উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

চাঁদপুরে ৪ উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক গণভবন থেকে বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) সকাল ১০ টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভিডিও কনফারেন্সি এর মাধ্যমে চাঁদপুর জেলার চাঁদপুর সদর,হাইমচর,হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি উপজেলায় শতভাগ বিদুৎতায়ন শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করা হয়েছে।

একই সাথে শুভ উদ্বোধন করা হয় মতলব উত্তর মুক্ত মঞ্চ ও প্রশিক্ষণ ভবন এবং মতলব দক্ষিণ ফায়ার স্টেশন। এ সময় জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে এই সব উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর ফলক উম্মোচন করেন চাঁদপুর -৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি।

জেলা প্রশাসক মোঃ মাজেদুর রহমান খান, পিএএ এর সঞ্চালনায় তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই ভিডিও কনফারেন্সি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির,পিপিএম,বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ,সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা অালহাজ্ব আবু নঈম পাটওয়ারি দুলাল, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওচমান গণি পাটওয়ারি,বাংলাদেশ পল্লী বিদুৎতায়ন বোর্ড এর পরিচালক মোঃ আব্দুছ ছোবহান মিঞা,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মোহাম্মদ শওকত ওসমান,স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী,প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারি, সাধারন সম্পাদক মির্জা জাকির প্রমুখ। এছাড়া বিভিন্ন উপজেলা ও পৌরসভার জনপ্রতিনিধিগণ,প্রশাসনিক ও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং নানা শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সাথে ভিডিও কনফারেন্সির মাধ্যমে দোয়া ও মোনাজাতে শরীক হন সবাই।

চাঁদপুরসহ সারাদেশে ৩২১টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেছেন। বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ২০টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের আওতায় দেশের ৫৬টি জেলায় তিনি এসব প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এরমধ্যে তিনি ২৯৭টি প্রকল্প উদ্বোধন এবং ২৪টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘নির্বাচন খুব সামনে। হয়তো যে কোনো সময় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে। আবার আমরা জনগণের কাছে আসব, নৌকা মার্কায় ভোট চাইব।

‘আমরা দিনবদলের ঘোষণা দিয়েছিলাম। প্রকৃতপক্ষে মানুষের জীবন বদল হয়েছে।’

গত ১০ বছর ক্ষমতায় থেকে বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা এবং বিরোধীদের সহিংস রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের মতো কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেও দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।
তিনি বলেন, বাংলাদেশকে আমরা উন্নয়নের মহাসড়কে পৌঁছে দিয়েছি। আজকে গ্রামের মানুষেরও ভাগ্য পরিবর্তন হয়েছে, উন্নত হয়েছে। আরও উন্নয়ন হোক সেটিই আমরা চাই। আর সে লক্ষ্য নিয়েই আমাদের কাজ।আরো উন্নয়নের জন্য নৌকা প্রতীকে ভোট চাই।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় সুন্দরবনকে সম্পূর্ণ জলদস্যু মুক্ত ঘোষণা করে ডাকাতি ছেড়ে দেয়া মানুষদের সমাজে পুনর্বাসনে সবরকমের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে পিরোজপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, বাগের হাট, চট্টগ্রাম, ঢাকার উত্তরার ১৮ নম্বর সেক্টর এবং ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার এলাকার স্থানীয় জনগণ, প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি এবং উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, এলজিআরডি ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, তথ্য মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, রেলপথ মন্ত্রী মো.মুজিবুল হক, নৌপরিবহন মন্ত্রী মো.শাজাহান খান, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, ডাক ও টেলি যোগাযোগ এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মুস্তাফা জব্বার উপস্থিত ছিলেন।

স্টাফ করেসপন্ডেট
০১ নভেম্বর,২০১৮

Leave a Reply