Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Home / উপজেলা সংবাদ / হাইমচর / হাইমচরে অসহায় বৃদ্ধ পরিবারকে উচ্ছেদের চেষ্টা : আদালতে মামলা
Hanif

হাইমচরে অসহায় বৃদ্ধ পরিবারকে উচ্ছেদের চেষ্টা : আদালতে মামলা

চাঁদপুর হাইমচরে ৩নং আলগী দক্ষিন ইউনিয়নের দক্ষিন আলগী গ্রামের অসহায় বৃদ্ধ মোঃ হানিফ পাটওয়ারী পরিবারকে তার স্থায়ী বসত বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে একই গ্রামের মৃত বদিউজ্জামান মুন্সির ছেলে আব্দুল লতিফ মুন্সি ও তার পরিবার।

এ নিয়ে অসহায় মোঃ হানিফ পাটওয়ারী চাঁদপুর জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টে মামলা দায়ের করেন। যার জি আর নং ১৮৩/১৮(৫) ।

মামলা সুত্রে জানা যায় হাইমচর উপজেলার দক্ষিন আলগী গ্রামের অসহায় মোঃ হানিফ পাটওয়ারী মৃত বদিউজ্জামান মুন্সির কাছ থেকে ১৫৫ হাল ৩নং আলগী দক্ষিন মৌজার সি এস নং ১১১ খতিয়ান ভুক্ত ১৫.৯৯ একর ভূমির মধ্যে এস এ ৯৯ খতিয়ান ভূক্ত ১.৪০ একর ভূমি ১৯৮৩ সালে নগদ মূল্যে ক্রয় করেন।

ক্রয় সূত্রে জামির মালিক হানিফ পাটওয়ারী বদিউজ্জামান মুন্সি বেচে থাকাকালীন জমি দলিল করে দিবে বলে প্রতিশ্রুতি দিলেও জমি দলিল করে দেননি। বদিউজ্জামান মুন্সির মৃত্যুর পর তার পরিবারের ছেলে আঃ লতিফ মুন্সি অন্য ব্যক্তির কাছে বিক্রি করে বলে জমি ছেড়ে দেওয়ার জন্য হানিফ পাটওয়ারীকে তাগিদ দিয়ে যাচ্ছে।

দীর্ঘ ৩৬ বছর হানিফ পাটওয়ারী তার ক্রয় কৃত ভূমির স্থায়ীভাবে বসবাস করে আসছেন। তার বসতবাড়ি সেমিপাকা বিল্ডিং, বৈদ্যতিক সংযোগ সহ বিভিন্ন অবকাঠামো স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়াও হানিফ পাটওয়ারী পিতা মৃত্যুর পর তার বাড়ীর পাশে নীজ জমিতে কবরস্থান নির্মান করেছেন। আঃ লতিফ মুন্সি তাদের অপর অংশিদারীদের স্বাক্ষর জাল করে তার নিজের উক্ত জমি রেকর্ড করে মোটা অংকের টাকার বিনিময় অন্য এক ব্যক্তির মালিকানা হস্তান্তর করার পায়তারা করছে।

এ ব্যাপারে হানিফ পাটওয়ারী জানান আমি মৃত বদিউজ্জামান মুন্সির কাছ থেকে ১৮ হাজার টাকার বায়না মূল্যে জমি ক্রয় করি। ক্রয়কৃত জমির উপর আমার বসতবাড়ী তৈরী করে জীবনযাপন করে আসছি। বদিউজ্জামান মুন্সি বেচে থাকাকালীন সময় দলিল কথা বারবার তাগিদ দিলেও দেই দিচ্ছি বলে দেননি। দীর্ঘ ৩৬ বছর পর তার পুত্র লতিফ মুন্সি আমাকে বাড়ী ছাড়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। আমি প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করছি আমার বৃদ্ধ বয়সের কষ্ট দূর করার এ সুষ্ঠ বিচার দাবি করি।

প্রতিবেদক:বিএম ইসমাইল
২৫ জানুয়ারি,২০১৯

Leave a Reply