Home / বিনোদন / স্বামীর কাছ থেকে প্রতি মাসে ১ লাখ টাকা দাবি করতেন বাঁধন

স্বামীর কাছ থেকে প্রতি মাসে ১ লাখ টাকা দাবি করতেন বাঁধন

প্রেম-ভালবাসা অতঃপর বিয়ে। কিন্তু বিয়ের পরই পাল্টে গেলেন অভিনেত্রী বাঁধন। ধীরে ধীরে বের হতে লাগলো তার আসল রূপ। দিতে থাকলেন তার লোভনীয় সব প্রস্তাব। এমনটাই জানাচ্ছেন তার স্বামী মাশরুর সিদ্দিকী সনেট।

সনেট ডিভোর্সের কারণ সম্পর্কে বলেন, ‘বিয়ের পর আমি বাঁধনকে নিয়ে গুলশানে উঠি। সেটি ছিলো আমার ভাড়া বাসা। আমি বুঝতে পারিনি তখনও আমি একটা কৌশলী মেয়ের ফাঁদে পড়েছি। কিছুদিন যেতে না যেতেই বললো, ‘আমি আর অভিনয় করবো না। প্রতি মাসে আমাকে ১ লাখ টাকা হাত খরচ দিতে হবে।’

আমি বললাম, ‘অভিনয় করবে না কেন? তুমি অভিনেত্রী বলেই তোমাকে আমার ভালো লেগেছিলো। অভিনয়টা চালিয়ে যাও। আর সংসার তো আমি চালাচ্ছিই। তোমার সব চাহিদাও মেটাচ্ছি। যখন যতো টাকা লাগে দিচ্ছি। তবে প্রতি মাসে আলাদা করে ১ লাখ টাকা কেন দিতে হবে?’ উত্তরে সে বললো, ‘এটা তার লাগবেই।’ এ নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় দুজনের মধ্যে। সে থেকেই ঝামেলার শুরু।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাঁধন প্রচণ্ড লোভী একটি মেয়ে। ও ভেবেছিলো আমি বিরাট শিল্পপতি। টাকা দিয়ে আমি ওকে মুড়িয়ে রাখবো। এজন্যই সে আমাকে বিয়ে করেছিলো ফাঁদে ফেলে। কিন্তু আদতে অতোবড় শিল্পপতি বা কিছু আমি নই। দীর্ঘদিন আর্মিতে চাকরি করেছি। যা কিছু সঞ্চয় করেছি তাতে কিছু ব্যবসা করে মধ্যবিত্ত জীবন যাপন করার চেষ্টা করি।

কিন্তু বাঁধন যখন বিয়ের পরে দেখলো আমি ওর স্বপ্নের মতো নই তখন থেকেই ও হতাশ। প্রতি মাসে ১ লাখ টাকা চায়, আমার ব্যবসায়ে পার্টনারশিপ চায়। আমি বলতাম, যা কিছু আমার সবই তো তার। সে বিশ্বাস করতো না। সে আসলে খুবই লোভী।

ওর পরিবার ছাড়া কেউই এই মেয়েটাকে পছন্দ করে না। ওর আত্মীয়দের সঙ্গে আপনারা যোগাযোগ করুন, জানতে পারবেন বাঁধন মানুষ হিসেবে কতোটা নিচু মানের। মিডিয়াতেও অনেকে বাঁধনের বিষয়ে জানে। আমার কাছে অনেক অভিযোগই এসেছে বিয়ের পর।

আমি পরে জেনেছি আগেও সে একটি বিয়ে করেছিলো। সেই সংসার থেকে অনেক অর্থকড়ি নিয়ে চলে এসেছিলো। মেয়েটাকে বিয়ে করার আগে বুঝতেই পারিনি ও এমন হতে পারে। যখন ও বাচ্ছা নিলো দ্রুত, ভেবেছিলাম সংসারটা মন দিয়ে করবে। কিন্তু সে আর হলো কই। টাকা পয়সা নিয়ে সবসময়ই আক্ষেপ করতো, লোভ করতো। আর তা নিয়েই হতো বিরোধ।’

২০১০ সালে ভালোবেসেই বিয়ে করেছিলেন লাক্স তারকা আজমেরি হক বাঁধন। কিন্তু বেশীদিন টিকল না সেই বিয়ে। ২০১৪ সালে ভেঙ্গে যায় তাদের সংসার। আর এখন আসলো গণমাধ্য। বাঁধনের অভিযোগ, তার স্বামী মাশরুর সিদ্দিকী সনেট তার থেকেও বিশ বছরের বড়। যা তার মায়ের বয়সেরও বেশী। তার স্বামী সংসার চালাতে অক্ষম বলেও দাবি তার।

নিউজ ডেস্ক
: : আপডেট, বাংলাদেশ ০১ : ৩০ পিএম, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ শুক্রবার
এইউ

শেয়ার করুন
x

Check Also

Akayed jongi

ঢাকায় আকায়েদ উল্লাহর স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়ি আটক

নিউ ...