Home / শীর্ষ সংবাদ / ভোট কেন্দ্র নয়, এ যেনো জমি দখল!
Dadosgram

ভোট কেন্দ্র নয়, এ যেনো জমি দখল!

জমি দখলের মতো ভোট কেন্দ্র দখল, কারচুপি, মারধর, ভয়-ভীতি প্রদর্শন, ভোটদানে বাধাদান, জাল ভোট প্রদান এবং ব্যালটে আগাম সিল মারাসহ ব্যাপক অনিয়ম, আতঙ্ক সৃষ্টি, প্রতিপক্ষের এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার মতো ঘটনার মধ্য দিয়ে হাজীগঞ্জ উপজেলার নবগঠিত দ্বাদশ গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শেষ হলো।

মঙ্গলবার (১৫ মে) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪ পর্যন্ত ৯টি কেন্দ্রের ৩২ টি বুথে মোট ৯ হাজার ৯শ’ ১৬ জন ভোটার তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে আসেন।

এদিকে সকাল থেকে ইছাপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, কাপাইকাপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, সাতবাড়ি মক্তব ঘর কেন্দ্র, নাাছির কোর্ট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ আরো অন্যান্য কেন্দ্রে ভোট প্রদানের শেষ সময় পর্যন্ত নৌকার সমর্থকরা কেন্দ্র দখল করার চেষ্টা চালায়। এর মধ্যে কাপাইকাপ, সাতবাড়ি, নাাছির কোর্টসহ আরো দুটি কেন্দ্র বেলা ১২ টার মধ্যে দখল করে রাখে নৌকার কর্মীরা।

অন্যদিকে জেলা প্রশেসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা ছিলেন নিরুপায়। পুলিশ প্রশাসনের সামনে কেন্দ্র দখল, মরাধর করে ক্ষমতাশীন দলের সমর্থকরা।

নির্বাচনে র‌্যাব-বিজিবি মোতায়েন করা হলেও একটি কেন্দ্রেও তাদের অবস্থান লক্ষ করা যায়নি। তাদেরকে দেখা গেছে বাকিলা বাজারে অবস্থানরত। এছাড়া কেন্দ্রে যে কোন সময় ম্যাজিস্ট্রেট ও স্ট্যাকিং ফোর্স আসলে ক্ষমতাশীন দলের কর্মীরা চলে যেতে বললে চলে যান। এরপর শুরু হয় সিল মারা। কেউ বাধা দিতে আসলেই হুমকি এবং মারধর। ফলে নাটকীয় ভাবে শেষ হয় হাজীগঞ্জ উপজেলার নবগঠিত দ্বাদশ গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভোটের ফলাফল পাওয়া যায়নি।

এ সংক্রান্ত পরবর্তী প্রতিবেদন পড়তে ক্লিক.. নবগঠিত দ্বাদশগ্রাম ইউপি’র প্রথম চেয়ারম্যান হলেন যিনি

প্রতিবেদক : শরীফুল ইসলাম

শেয়ার করুন

Leave a Reply