Home / জবস / একটি প্রকল্পে ৫০জন লোক নিয়োগ দিবো, কিন্তু…
Ekram-ICT
লেখক- মো. ইকরাম (বামে)। চাঁদপুর মেঘনা মোহনায় তরুণ আইসিটি উদ্যোক্তাদের সাথে লেখক (ডানে)।

একটি প্রকল্পে ৫০জন লোক নিয়োগ দিবো, কিন্তু…

একটি প্রকল্পে ৫০ জন লোক নিয়োগ দিবো, সেটা নিয়ে গত কিছুদিন কাযক্রম চলছে। কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করছি, যাতে নতুন বেকাররা কিছু গাইডলাইন পাবেন। অনুরোধ হচ্ছে, পোস্টটি নিজের ওয়্যালে শেয়ার করবেন, অন্যরাও যাতে বিষয়টি নিয়ে সচেতন হয়।

১) আমাদের বেকারত্বের হতাশা অনেক বেশি, কিন্তু কোন একটা জব পোস্ট হলে সেটাতে জব করতে আগ্রহীদের আবেদন অনেক কম থাকে।

এর কয়েকটা কারণ হতে পারে:
ক) জব খুজছেন, কিন্তু জব পোস্টগুলোর ব্যপারে সতর্ক থাকছেন না। হয়ত মিস করে যাচ্ছেন।

খ) জব খুজছেন, কিন্তু হয়ত কোন ধরনে আবেদন করা ছাড়াই কেউ এসে জব দিয়ে যাবে, সে প্রত্যাশা করছেন।

গ) হয়ত জব অ্যাপ্লাই করার জন্য প্রাথমিক প্রস্তুতি (সিভি প্রস্তুত নাই) এখনও নেননি। কিন্তু বেকারত্বের জন্য ঠিকই হতাশা ঝাড়ছেন।

২) সিভিটাই এখনও প্রস্তুত করেননি, কিন্তু জব পাচ্ছেননা বলে হতাশা ঝাড়ছেন, এ সংখ্যাটা আমাদের অনেক। হয়ত কোন জব পোস্ট দেখলে ঝটপট ১-২ঘন্টার মধ্যে একটা সিভি প্রস্তুত করে সেটা জমা দিয়ে দিচ্ছেন, আর আশা করছেন, জব হয়ে যাবে, এ রকম সংখ্যাটাও অনেক। আর সেই সিভি দেখে জবের জন্য ডাক না পেলে অজুহাততো রেডি আছেই। মামু চাচা নাই, ঘুষ দেওয়ার টাকা নাই দেখে জব হচ্ছেনা, এ অজুহাত দেখিয়ে পরিবার কিংবা কাছের মানুষদেরকে সান্তনাসূচক বানিয়ে শুনিয়ে নিজের অক্ষমতাকে লুকিয়ে বেচে যাচ্ছেন হয়ত।

৩) সিভি যেগুলো জমা পাই, সেগুলোর ৭০% শুরুতেই রিজেক্ট করে দিতে হয়, কারণ একটা সিভি দেখলেই একজনের ব্যপারে ভাল ধারণা পাওয়া যায়, তাকে আর ইন্টারভিউতে ডেকে আমার সময় নষ্ট করতে চাইনা কখনও।

তাই পরামর্শ সময় নিয়ে নিজের প্রফেশনাল সিভি প্রস্তুত করুন, না হলে জব পাওয়ার স্বপ্নটা বাদ দিয়ে দিন। প্রফেশনাল সিভি ফরম্যাট দিয়ে গুগলে সার্চ করলে বহু বহু ফরম্যাট পেয়ে যাবেন, যেকোন ১টাকে এডিট করে নিজেরটা প্রস্তুত করে ফেলুন।

৪) সিভিতে আমরা সবার প্রথমেই খুজি তার কাজের অভিজ্ঞতাগুলো। আইটি সেক্টরের জন্য বলছি, নতুন জব না করলে অভিজ্ঞতা হবে কিভাবে, এটা মনে করছেন? তাহলে জেনে রাখুন, আপনার আইটি সেক্টর সম্পর্কে নলেজই হয়নি। আইটি সেক্টরে অভিজ্ঞতা হতে জব করার প্রয়োজন হয়না।

ক) ওয়েব ডেভেলপার হলে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হলে ১০টি ওয়েব সাইট কাজ করুন। ফ্রিতেই করে দিন, পোর্টফলিও তৈরি হবে।

খ) ডিজাইনরা অভিজ্ঞতা হতে হলে ১০জন ফেসবুকের জনপ্রিয় ব্যক্তির ফেসবুক কভার ডিজাইন করে দিন, ১০টা ইকমার্স ব্যবসায়িকে তাদের লোগো, বিজনেস কার্ড ডিজাইন, ফেসবুক কভার ডিজাইন , প্রোডাক্ট মার্কেটিং অ্যাড ডিজাইন করে দিন। এরকম ৫০টা কাজ ফ্রিতে ডিজাইন করে দিন।

গ) ডিজিটাল মার্কেটাররা ৫টা সাইটে কীওয়ার্ড রিসার্চ, ২০টা আর্টিকেল, ৫টা সাইটের অনপেইজ এসইও, ৫টা ফোরামে ১মাসে কমপক্ষে ৫০টা পোস্ট করুন, ৫০টা ব্লগ কমেন্ট করুন, জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে নিজের কমিউনিটি বিল্ড করুন,
এগুলো প্রতিটাকেই পোর্টফলিওতে যুক্ত করুন।

এ কাজগুলো ৩-৬মাস ধরে সম্পন্ন করুন। অভিজ্ঞতা অর্জন হবে, স্কীল বাড়বে, নিজের স্কীলের প্রচারও হবে। এরপর দেখেন আপনার জবের জন্য মামু- চাচা লাগে কিনা, ঘুষ লাগে কিনা।

মনে রাখবেন, আইটি সেক্টরে হচ্ছে সবচাইতে বড় জব সেক্টর এবং এ সেক্টরের ৩০% হচ্ছে নন গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন। জাস্ট স্কীলের জন্যই তাদের জব।

৫) এখনও কোন কাজের অভিজ্ঞতা হয়নি এরকম ব্যক্তিরাও জবের জন্য স্বপ্ন দেখে শুরুতেই বড় স্যালারিতে জব। জব করেন, অভিজ্ঞতা অর্জন করেই স্যালারি বাড়িয়ে নিন। একদিনে বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখলেতো ছিটকে পড়বেন।

৬) একটা জবে অ্যাপ্লাই করে সেটাতেই চাকুরি হয়ে যাবে, সেই স্বপ্ন দেখাটাও বাদ দিয়ে সব জায়গাতে অ্যাপ্লাই করে যান, ইন্টারভিউ ফেস করতে করতেও অনেক কিছু অভিজ্ঞতা অর্জন হবে।

৭) অনেকে দেখেছি ইন্টারভিউ দিতে আছে , ড্রেস কিংবা অন্য বিষয়গুলোতে সচেতন থাকেন না। স্যান্ডেল পড়ে, টি-শার্ট পড়ে চলে আসছে, এরকম মানুষদের সাথেও দেখা হচ্ছে।

তারা বিব্রত না হলেও আমি ইন্টারভিউতে বসে বিব্রত হই, এরকম ১জনকে আমার ইন্টারভিউ নিতে হচ্ছে। তাই বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকুন।
আরও কিছু বিষয়ে পরামর্শ ছিলো, মনে করতে পারছিনা, তাই শেষ করছি। ভবিষ্যতে মনে পড়লে নতুন কিছু যুক্ত করে দিবো।

পোস্টটি সব বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। তাহলে আপনার বন্ধুরাও নিজের লাইফকে পরিবর্তন করতে পারবে। আসুন সবাই মিলে নিজের বন্ধু এবং আশেপাশের মানুষদের বেকারমুক্ত করতে অবদান রাখি।

লেখক- মো. ইকরাম
কো-অ ির্ডনেটর (সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগ)
লার্নিং এন্ড আর্নিং (এলডিপি) প্রকল্প, আইসিটি ডিভিশন।

Leave a Reply

ইন্টারনেট কানেকশন নেই