Home / চাঁদপুর / বিশ্ববাসী ইজতেমার মাধ্যমে চাঁদপুরকে চিনবে ও জানবে : সুজিত রায় নন্দী
Nondy ijtema

বিশ্ববাসী ইজতেমার মাধ্যমে চাঁদপুরকে চিনবে ও জানবে : সুজিত রায় নন্দী

বিশ্ব ইজতিমার তত্ত¡াবধানে চাঁদপুরে প্রথমবারের মত আগামী ৩০ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৩ দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চাঁদপুর জেলা ইজতিমা।

সোমবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে ইজতেমার মাঠ পরিদর্শন ও মুসল্লীদের নিরাপত্তাসহ আয়োজকদের সাথে বিভিন্ন বিষয়ে আলাপ আলোচনাকালে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী বলেছেন, চাঁদপুরে ইজতেমা হওয়ায় বিশ্ববাসী ইজতেমার মাধ্যমে চাঁদপুরকে চিনবে ও জানবে। এটা আমাদের গর্ব ও অহংকার। বিশ্বের ধর্মগ্রাণ মুসল্লীরা এ ইজতেমায় অংশ গ্রহন করবে। চাঁদপুরের সন্তান হিসাবে আমি আনন্দিত ও গর্বিত। জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া চেয়ে ও ইজতেমা সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করেন তিনি।

এ সময় জেলা আওয়ামীলগি সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ আখন্দ, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. বিনয় ভূষণ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, , জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিঃ আব্দুর রব ভূঁইয়া, উপদেষ্টা আব্দুর রশিদ সর্দার, সদস্য অ্যাড. জসিম উদ্দিন পাটওয়ারী, পৌর মহিলা কাউন্সিলর ফরিদা ইলিয়াস, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা অ্যাড. আতাউর রহমান পাটওয়ারী, ফেরদাউস মৌর্শেদ জুয়েল, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হাসিব পাটওয়ারী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল হাসান মুন্না সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, চাঁদপুর শহরে পুরাণ বাজার দোকানঘর এমদাদিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন পশ্চিম জাফরাবাদ মেঘনা নদীর পাড় ঘেঁষা জমিতে ইজতিমার প্যান্ডেলের কাজসহ প্রয়োজনীয় কাজ দ্রæত এগিয়ে চলছে। প্রতিদিন গড়ে স্বেচ্ছায় ৭ থেকে ৯শ’ লোক স্বেচ্ছাসেবীর কাজ করছেন।

বিভিন্ন পেশার লোকজন প্যান্ডেল নির্মাণের কাজে সহায়তা করছে। পাশাপাশি বিভিন্ন উপজেলার কলেজ, স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরাও প্যান্ডেলের কাজ ও স্বেচ্ছাসেবীর কাজ করছেন। আমন্ত্রিত বিদেশী অতিথিদের থাকার জন্য আলাদা প্যান্ডেল নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়া মুসল্লিদের গোসল, ওযুর ব্যবস্থা ও পর্যাপ্ত টয়লেট নির্মাণ করা হচ্ছে। মাঠে প্রবেশের রাস্তাগুলো প্রশস্ত করা হচ্ছে।

এছাড়া টঙ্গী বিশ্ব ইজতিমার আওতায় এ ইজতিমার আয়োজন করা হয়েছে। এবছর দেশের ১৬টি জেলায় আলাদাভাবে জেলা ভিত্তিক ইজতিমার আয়োজন করা হয়েছে।

চাঁদপুরে প্রথমবারের মত বিশাল এ ইজতিমার আয়োজন করায় জেলার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের মধ্যে গত কিছুদিন থেকেই বেশ আনন্দ বিরাজ করছে। মাঠের আশপাশে বসবাসরত বাসিন্দারাও যার যার সাধ্যমত প্যান্ডেল নির্মাণে সহায়তা করে যাচ্ছে। প্রতিদিন জেলার ৮ উপজেলা থেকে শ’ শ’ মানুষ দলবদ্ধ হয়ে স্বেচ্ছায় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্যান্ডেলের কাজে সহায়তা করছেন।

আয়োজকরা জানান, সব শ্রেণীর ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ইজতিমায় অংশগ্রহণ করলে প্রায় ৫-৬ লাখ মুসল্লির সমাবেশ ঘটবে বলে আশা করা যাচ্ছে। টঙ্গী ইজতিমা মাঠের ন্যায় এই মাঠেও ৮ উপজেলা থেকে আগত মুসল্লিদের জন্য আলাদাভাবে বসার ব্যবস্থা থাকবে। মুসল্লিদের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার ও ব্যবস্থা রাখা হবে।

পরে সন্ধ্যায় চাঁদপুর সদর উপজেলা ২নং আশিকাটি ইউনিয়নের হোসেনপুর শ্রী শ্রী মা কালী মন্দির ও লোকনাথ আশ্রমে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক জুজিত রায় নন্দী বক্তব্য রাখেন।

মাজহারুল ইসলাম অনিক
: পডেট, বাংলাদেশ ১১ : ০৩ পিএম, ২০ নভেম্বর, ২০১৭ সোমবার
ডিএইচ

শেয়ার করুন
x

Check Also

Hal chas by cow

আধুনিকতার ছোঁয়ায় চাঁদপুরে বিলুপ্তির পথে গরু-লাঙ্গলের হাল চাষ

চঁদপুর ...