Home / চাঁদপুর / কলকাতার ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন চাঁদপুরের কৃতি সন্তান রাফি সালমান

কলকাতার ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন চাঁদপুরের কৃতি সন্তান রাফি সালমান

বাংলাদেশ ছাড়িয়ে এবার ওপার বাংলা কলকাতার সুনামধন্য পরিচালক অমিত চ্যার্টাজির ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হলেন চাঁদপুরের কৃতি সন্তান রাফি সালমান।

জানা যায়, রাফি সালমান বাংলাদেশ চলচ্চিত্রে প্রয়াত সালমান শাহ’র অসমাপ্ত ছবি প্রেম পিয়াসী ও দিওয়ানা মনের পর এবার কলকাতার ‘ঘেরা’ নামের ছবিতে হিরো চরিত্রে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। যে ছবিটির আংশিক কিছু শুটিং হলেও আগামী নভেম্বর মাসে পুরোপুরি ভাবে শুটিং শুরু হবে বলে জানা গেছে।

রাফি সালমান বলেন, ‘কলকাতার সুনামধন্য পরিচালকের ঘেরা ছবিটিতে অভিনয়ের জন্য তিনি গত ২৭ মে কলকাতা গিয়েছেন। ছবির পরিচালক অমিত চ্যার্টজির সাথে তার চুক্তির বিষয়ে আলাপ আলোচনা করে আসেন।’

আগামী নভেম্বরে ছবিটির শুটিং শেষে হলে ২০১৯ সালে নতুন বছরে দর্শকদের মাঝে ছবিটি উপস্থাপন করতে পারবেন।

‘ঘেরা’ ছবির বিষয়ে পরিচালক অমিত চ্যার্টাজি বলেন, ‘এ্যাকশান ও একটি ভিন্নধর্মী কাহিনী দিয়ে ঘেরা ছবিটি সাজানো হয়েছে। যা দর্শকদের কাছেও অনেক গ্রহন যোগ্যতা পাবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।’

তিনি আরো বলেন, ‘রাফি সালমানের বিপরীতে নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করবেন কলকাতার সুনামধন্য একজন নায়িকা। তবে দর্শকদের সারপ্রাইজ দেবার জন্য এখন তার নামটি প্রকাশ করা যাবেনা। নভেম্বরে ছবিটির সর্ম্পন শুটিং শুরু করবো। ডিসেম্বরে বাকি কাজ শেষে আশা করি নতুন বছরে দর্শকদেরকে ছবিটি উপহার দিতে পারবো।’

প্রসঙ্গ রাফি সালমান, বাংলাদেশ চলচিত্রের এক সময়ের জনপ্রিয় নায়ক প্রয়াত সালমান শাহ’র অসমাপ্ত ছবি প্রেম পিয়াসী ছবিতে অভিনয় করেন।

তারপর থেকেই বাংলাদেশ চলচিত্র অঙ্গনে তার যাত্রা শুরু করেন। এর পূর্বে রাফি সালমান বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচারিত নাটক সোনার হরিণ, শিকার, পরশী, ভয়, আতংক, অবশেষে একদিন ঢাকা টু বরগুনাসহ বেশ কিছু নাটকে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

সর্বশেষ ২০১৬ সালে এই অভিনয় শিল্পী পরিচালক নুরুল ইসলাম প্রীতমের দিওয়ানা মন ছবিতে মূল নায়কের চরিত্রে অভিনয় শেষে এখন কলকাতার ঘেরা ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন।

চাঁদপুরের এই কৃতি সন্তান অভিনয়ের মাধ্যমে যেনো দর্শকদের মন জয় করে যাতে আরো বেশি প্রশংসা কুড়াতে পারেন সেজন্য সকলের দোয়া ও আর্শিবাদ কামনা করছেন।

প্রতিবেদক:কবির হোসেন মিজি

শেয়ার করুন

Leave a Reply