Home / চাঁদপুর / ঈদকে সামনে রেখে চাঁদপুরে সক্রিয় হয়ে উঠছে ছিনতাই চক্র
Dakati_Churi
প্রতীকি ছবি

ঈদকে সামনে রেখে চাঁদপুরে সক্রিয় হয়ে উঠছে ছিনতাই চক্র

পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে সক্রিয় হয়ে উঠেছে মলম পার্টি, ছিনতাই চক্র। চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন স্থানে ঘটছে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা।

প্রতি বছর ঈদ এলেই প্রতারক চক্র, মলম পাটি, চোর ও ছিনতাই কারীদের দৌরাত্ম বেড়ে যায়। লঞ্চঘাট, বাসস্ট্যান্ড, রেলওয়ে, হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষজনকে বিভিন্নবাবে ধোকা দিয়ে নগদ অর্থসহ, স্বর্ণালন্কার, মোবাইল সেট অথবা প্রয়োজনীয় মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

এবার ও ঈদুল অযহাকে সামনে রেখে তারা শহরের বিভিন্ন স্থানে চুরি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটাচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে শহরের এক রিক্সা চালক জানায়, ‘গত ৫ সেপ্টেম্বর ঘোড়া মারা আশ্রায়ন প্রকল্পের সামনে বঙ্গবন্ধু সড়কে রাত ১০টায় ছিনতাই কারীরা এক অটোবাইক চালককের অটো থামিয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ টাকা-পয়সা ও তার সাথে থাকা মোবাইল সেট নিয়ে যায়। শুধু তাই নয় চালক তা দিতে রাজি না হলে ছিনতাই কারীরা তার দু হাতে ছুরিকাঘাত করে। এতে সে গুরতর আহত হয়ে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নেন।’
এছাড়াও ক’জনকে মলম পাটির খপ্পরে পড়ার খবর পাওয়া গেছে।

শহরের উত্তর ইচলীতে একটি ফ্ল্যাট বাসায় চুরি করার সময় দুই চোরকে হাতে নাতে আটক করে এলাকা বাসি। পরে তাদেরকে পুলিশে সোর্পদ করা হয়।

শহরের বাইরে ও শাহরাস্তিসহ বিভিন্ন উপজেলা গুলোতে পরিবারের সকলকে অচেতন করে স্বর্বস্ত্র লুট ও দুর্দষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।
এ ধরণের এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার (৬সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ টায় ইসলামী ব্যাংক চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ শাখার সিঁড়ির সামনে টাকা ‘ছিনতাইকালে’ এক নারীকে আটক করা হয়। অপরজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

আটককৃত নারী চাঁদপুর সদর উপজেলার পুরাণবাজারের বাসিন্দা আছমা বেগম, পালিয়ে যাওয়া অপরজন সুমী বেগম (২৬)।

এ মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর ) ওই গ্রাহক বাদী হয়ে অভিযুক্ত দু ’মহিলার বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করে ।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো.শাহআলম চাঁদপুর টাইমসকে বলেন, ‘ ইতোমধ্যে বাজারে চুরি ছিনতাই ঠেকাতে সাধারণ পোশাকের পুলিশসহ মহিলা পুলিশ নিয়োজিত রাখা হয়েছে।’

ঈদকে ঘিরে বিভিন্ন জেলা থেকে মানুষজন গ্রামের বাড়িতে ঈদ করার জন্য আসতে শুরু করেছে। অনেকে গভীর রাতেও একা কিংবা পরিবার পরিজন নিয়ে রাত করে তাদের গন্তব্যে ছুটে যান।

তাই তাদের নিরাপত্তার জন্য চোর ও ছিনতাই কারীদের কবল থেকে বাঁচতে চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ পাহারা জোরদারের প্রয়োজন বলে মনে করছেন সচেতনমহল।

এদিকে রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় চাঁদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে চাঁদপুর জেলার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি পর্যালোচনা ও নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভায় সভাপতির চাঁদপুর পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বলেছেন, ‘লঞ্চ স্টাফদের কেবিন যাত্রীদের ভাড়া দেয়া যাবে না। যে সকল যাত্রী লঞ্চে কেবিন ভাড়া নেবে তাদের নাম পরিচয় মোবাইল নাম্বারসহ যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘বিগত দিনের ন্যায় শান্তিপূর্ণভাবে আমরা আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল-আযহা পালন করতে চাই। শহরের প্রতিটি বড় বড় মার্কেটে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনতে হবে । মার্কেটের নিরাপত্তার ব্যবস্থা জোরদার করা হবে।’

: আপডেট, বাংলাদেশ সময় ৩:৪০ পিএম, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬, বৃহস্পতিবার
ডিএইচ

About The Author

প্রতিবেদক- কবির হোসেন মিজি

Leave a Reply