Home / বিশেষ সংবাদ / ‘কলিজার টুকরা’ নাতিকে কলিজা দিয়ে বাঁচালেন নানি

‘কলিজার টুকরা’ নাতিকে কলিজা দিয়ে বাঁচালেন নানি

‘কলিজার টুকরা’ বলে নাতিকে আদর করে কোলে নিতেন নানী। এরপর সত্যিসত্যি নিজের কলিজা দান করলেন তিনি। সম্প্রতি এমন হৃদয়স্পর্শী ঘটনা ঘটেছে ভারতের রায়পুরে।

সেখানে ৯ মাসের নাতি পিযুষ কুন্ডুকে নিজের লিভার (কলিজা) দান করলেন শিশুটির নানী লক্ষী সরকার।

কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দ বাজার জানায়, জন্মের সময় জন্ডিস নিয়েই পৃথিবীতে আসে ছোট্ট পিযুষ কুন্ডু। অনেক চিকিৎসার পরও শিশুটির লিভার ধীরে ধীরে কর্মক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।

লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট (যকৃৎ স্থানান্তর) ছাড়া শিশুটিকে বাঁচানো সম্ভব হবে না বলে জানান চিকিৎসকরা।

এখবরে সন্তানের জন্য লিভারের খোঁজে মরিয়া হয়ে ওঠেন বাবা-মা। লিভার পুনঃস্থাপনের জন্য ভারতের অনেক হাসাপাতালে যোগাযোগ করে ব্যর্থ হন তারা।

এদিকে যতই দিন গড়াতে থাকে শিশু পিযুষের প্রাণভোমরা স্তিমিত হয়ে থাকে। শেষপর্যন্ত হাল ছেড়ে দেন পিযুষের বাবা-মা।

একসময় নিজের নাতীকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন নানী লক্ষী সরকার। পরীক্ষার পর চিকিৎসরা হাসিমুখে জানান, পিযুষের সঙ্গে তার নানীর লিভার ম্যাচ হয়েছে। যদি তিনি স্বেচ্ছায় পিযুষকে লিভার দান করতে চান তাহলে যত দ্রুত সম্ভব অপারেশনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হতে।

অতঃপর ওই হাসপাতালের চিকিৎসকদের সহায়তায় ১৫ লাখ রুপি সংগ্রহ করে গত ১০ সেপ্টম্বের মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে অপারেশন হয় পিযুষের।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অপারেশনটি খুবই জটিল ও উদ্বেগের ছিল। কারণ শিশু পিযুষের ওজন ছিল মাত্র ৫ কেজি আর তাকে লিভার দানকারী ছিলেন একজন বয়স্কা নারী। তবুও ঝুঁকি নিয়েই অস্ত্রপচার করে সক্ষম হন তারা। নানী লক্ষী সরকারের লিভারের ৩০ শতাংশ দেয়া হয়েছে শিশু পিযুষকে।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) সুস্থদেহে বাড়ি ফিরেছে লক্ষী সরকারের কলিজার টুকরো পিযুষ কুন্ডু।