Home / আরো / ইসলাম / আজ চাঁদ দেখা গেলে কাল ঈদ

আজ চাঁদ দেখা গেলে কাল ঈদ

এক মাস সিয়াম সাধনার পর আনন্দের ঈদ সমাগত। রমজানের রোজা শেষে পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখামাত্রই ঈদের খুশি ছড়িয়ে পড়বে সর্বত্র। স্বভাবতই আজ মঙ্গলবার (৪ জুন ) সন্ধ্যায় সবার চোখ থাকবে পশ্চিম আকাশে। আজ শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে আগামি কাল বুধবার (৫ জুন)  পবিত্র ঈদুল ফিতর। আর না দেখা গেলে বাড়বে একটি রোজা, ঈদ হবে পরদিন বৃহস্পতিবার।

চাঁদ দেখা গেলে সর্বত্র বেজে উঠবে সেই চিরচেনা  জাতীয় কবি ‘র সুর ‘ও মন, রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ।’ সৌদি আরবে আজ ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে। বাংলাদেশে সাধারণত সৌদি আরবের পরদিনই ঈদ উদযাপিত হয়। চাঁদ দেখার ওপর ভিত্তি করে দেশভেদে ঈদুল ফিতরের দিনক্ষণে তারতম্য হয়।

সন্ধ্যায় বৈঠকে বসবে চাঁদ দেখা কমিটি। শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখাসাপেক্ষে ঈদের তারিখ নির্ধারণ হবে এ সভায়। এবার ঈদের দীর্ঘ ছুটি থাকায় মানুষের ঈদযাত্রার দুর্ভোগ খানিকটা কম। বাস-লঞ্চ-রেলস্টেশনগুলোয় ভিড় স্বাভাবিক রয়েছে। সড়কপথে যানজট বা ভোগান্তি না থাকলেও ট্রেনের সূচি ঠিক নেই। অধিকাংশ ট্রেন ছাড়ছে দেরিতে।

মুসলমানদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। আজ রাতটা পোহালেই শুরু হবে মুসলমানদের মিলনের উৎসব। ধনী-নির্ধন নির্বিশেষে আনন্দে মাতোয়ারা হবেন সবাই। তারা একে অন্যের সঙ্গে কুশল বিনিময় করবেন। আর পায়েস-সেমাইয়ের পাশাপাশি থাকবে মুখরোচক সব খাবার। ঘরে ঘরে সবার ঈদের প্রস্তুতি প্রায় শেষ। চলছে শেষ মুহূর্তের কেনাকাটা। বন্ধুবান্ধব ও আত্মীয়স্বজনের মাঝে বিভিন্ন উপহারসামগ্রী বিতরণও প্রায় শেষ।

পবিত্র ঈদ মুসলমানদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন সুদৃঢ় করে এবং সম্প্রীতি বৃদ্ধি করে। বিশ্বমুসলিম একই আত্মার বন্ধনে আবদ্ধ-এ কথা স্মরণ করিয়ে দেয় ঈদ। ধনী-গরিব ভেদাভেদ ভুলিয়ে দিয়ে এক কাতারে শামিল করিয়ে দেয় এ উৎসব। হিংসা-বিদ্বেষ, অহঙ্কারসহ সব অন্যায় ও পাপাচার মুছে দিয়ে নতুন করে সুখী পবিত্র জীবনযাপন শুরু করার তাগিদ দেয় দিনটি।

ঈদে প্রতিবারের মতোই এবারও হাসপাতাল, এতিমখানা, শিশুসদন, কারাগার, ছোটমণি নিবাস, বৃদ্ধাশ্রম, ভবঘুরে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকবে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা। রাজধানীও সাজবে নবসাজে। রাজধানীর প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপ সাজানো হয়েছে জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ঈদ মোবারক-খচিত ব্যানার দিয়ে। চিড়িয়াখানা, শিশু পার্ক দর্শনার্থীদের জন্য সাজানো হয়েছে নতুন রূপে।

ঈদ শব্দের অর্থ আনন্দ। আর আল্লাহর পক্ষ থেকে ঈদ হচ্ছে বান্দার জন্য বিরাট আতিথেয়তা। তাই তিনি ঈদের দিন রোজা পালনকে হারাম করে দিয়েছেন। ফিতর মানে রোজা ভাঙা। ইফতার শব্দও ফিতর থেকে এসেছে। ঈদুল ফিতর মানে রোজা ভাঙার ঈদ। অন্য এক মত অনুযায়ী, ফিতর ফিতরাত শব্দ থেকে এসেছে। রমজানের এক মাস সিয়াম সাধনায় কষ্ট ও ক্লান্তির পর স্বাভাবিকভাবেই সুখ ভোগের বিষয়টি এসে যায়।

ঈদের দিন ভোরে ঈদের নামাজের আগে ফিতরা আদায় করতে হয়। ঈদের নামাজ মাঠে আদায় করাই উত্তম। সম্ভব হলে হেঁটেই ঈদগাহ মাঠে যাওয়া উত্তম। ঈদগাহে এক পথে যাওয়া ও ভিন্নপথে ফেরা এবং ভোরে উঠে খেজুর বা মিষ্টি কিছু খাওয়া রাসুল (স.)-এর সুন্নত।  সারাদেশে ঈদের জামাতের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত হবে জাতীয় ঈদগাহে, সকাল সাড়ে ৮টায়। ঈদগাহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাব ও পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সার্বক্ষণিক নজরদারি বজায় রাখবেন। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ব্যবস্থাপনায় মহানগরীর সব ওয়ার্ডে ঈদের জামাত হবে।

এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় খেলার মাঠে এবং জাতীয় সংসদ ভবনে দক্ষিণ প্লাজায় আরও দুটি পৃথক ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিবছরের মতো এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় সর্ববৃহৎ ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

চাঁদ দেখা কমিটির সভা আজ পবিত্র ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণ, শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার সংবাদ পর্যালোচনা এবং এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আজ সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হবে।

দেশের আকাশে কোথাও পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে নিম্নোক্ত টেলিফোন নম্বরে বা সংশ্লিষ্ট জেলার জেলা প্রশাসক বা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

টেলিফোন নম্বর :  ৯৫৫৯৪৯৩,   ৯৫৫৯৬৪৩,   ৯৫৫৫৯৪৭,   ৯৫৫৬৪০৭   ও  ৯৫৫৮৩৩৭।

বার্তা কক্ষ
৪ জুন ২০১৯