Home / চাঁদপুর / চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে গাইনি বিভাগ আছে ডাক্তার নেই
Chandpur-Medical-College
চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজের অস্থায়ী কার্যালয়,

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে গাইনি বিভাগ আছে ডাক্তার নেই

গরীব ও মধ্যবিত্ত পরিবারের গর্ভবতী মায়েদের আস্থার কেন্দ্র চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতাল। কিন্তু বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রসূতি সেবায় কার্যত ফল পাচ্ছেন না রোগীরা।

দীর্ঘ ১মাস ধরে দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক ছাড়াই চলছে ২শ’ ৫০ শয্যা বিশিষ্ট এ হাসপাতালের গাইনী বিভাগের কার্যক্রম। গুরুত্বপূর্ণ এই বিভাগে কর্মরত সিনিয়র এবং জুনিয় কনসালটেন্ট (গাইনী) দু’জনই রয়েছেন ছুটিতে।

এদের মধ্যে একজন পিআরএল এবং অপরজন মাতৃত্বকালীন ছুটিতে। এতে করে একদিকে এই বিভাগে দক্ষ চিকিৎসকের সমস্যায় ভুগছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এর অন্য দিকে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরা পড়ছেন মারাত্মক দূভোগে। ফলে এ বিষয়ের দ্রুত সমস্যা সমাধানে ডাক্তার নিয়োগ না হলে, যে কোনো সময় অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটতে পারে বলে মনে করছে রোগীরা।

হাসপাতালের গাইনী বিভাগের চিকিৎসা নিতে আসা বেশ করয়েকজন রোগীর সাথে কথা হলে তারা জানায়, গাইনী ও প্রসূতি বিভাগের সিনিয়র এবং জুনিয় কনসালটেন্ট ছুটিতে আছেন। এতে করে ডেলিভারী, চেকআপ, রেপ কেইস, পিএনসি, এএনসি’র মত বিভিন্ন রোগীরা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. আনোয়ারুল আজীম জানান, গাইনী বিভাগে কমর্রত সিনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনী) ফাতেমা বেগম গত ১ জানুয়ারি থেকে অবসর জনিত পিআরএল ছুটিতে রয়েছেন। আর জুনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনী) তাবেন্দা আক্তারও গত বছরের ৮ ডিসেম্বর থেকে মাতৃত্বকালীন ছুটিতে রয়েছেন।

বর্তমানে সহকারী রেজিস্টার হিসেবে নুসরাত জাহান ও মেডিকেল অফিসার হিসেবে নাসরীন পারভীন রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে। আমরা এই বিভাগের জরুরী ভিত্তিতে শূন্য পদে ডাক্তার নিয়োগ চেয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে চিঠি দিয়েছি। তারা দ্রুত ব্যবস্থা নিবেন বলে জানিয়েছেন।

তিনি আর জানান, এই হাসপাতালে চিকিৎসকের উপস্থিতি আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। আজকেও ৪৬জন চিকিকিৎসকের মধ্যে ৪২জন উপস্থিত হয়েছেন। আর বাকি চারজন নৈমিত্তিক ছুটিতে আছেন। বর্তমানে অন্তঃ বিভাগে ২৯২ জন রোগী ভর্তি আছেন এবং ২৭৬ জন রোগী জরুরি বিভাগ থেকে চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন।

প্রতিবেদক- আশিক বিন রহিম
৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯