Home / সারাদেশ / রাতেই ব্যালট বাক্স ভর্তি
vote

রাতেই ব্যালট বাক্স ভর্তি

তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে ভয়ভীতি দেখিয়ে রাতে ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্স ভরে রাখার অভিযোগে পাঁচটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

রোববার(২৪ মার্চ) সকালে কিশোরগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মো. তাজুল ইসলাম জানান, রাতেই কতিপয় দুষ্কৃতকারী ভয়ভীতি দেখিয়ে ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্সে ভরে রাখার অভিযোগে পাঁচটি কেন্দ্র ভোটগ্রহণ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিকে পুলিশ সুপার মাশরুকর রহমান খালেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, ‘ভোট কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও থানার ওসিকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

জানা গেছে, সকাল ৮টায় কটিয়াদী উপজেলার ৮৬টি কেন্দ্রে একযোগে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। এরই মধ্যে চান্দপুর ইউনিয়নের বেশ কিছু কেন্দ্রে রাতেই ব্যালট পেপারে সিল মারার অভিযোগ ওঠে। নির্বাচন কমিশনকে বিষয়টি জানানোর পর পথমে ৫টি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিতের নির্দেশ দেন নির্বাচন কমিশন। একইসঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ ও ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়া হয়। পরে সকাল ১০টার দিকে সব কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।

কেন্দ্রগুলো হচ্ছে- চান্দপুর বড়বাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চান্দপুর হাজীবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চাতল বাগহাটা উচ্চ বিদ্যালয়, চাতল বাগহাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং ভূনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্র।

কটিয়াদী উপজেলায় ৮৯ ভোটকেন্দ্র রয়েছে। (যুগান্তর)

বার্তা কক্ষ
২৪ মার্চ,২০১৯