Home / চাঁদপুর / নগরায়ণের ফলে সারাবিশ্বেই ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলছে
diabetic-chandpur-activities

নগরায়ণের ফলে সারাবিশ্বেই ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলছে

বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস হল বিশ্বজুড়ে ডায়াবেটিস সম্পর্কে বিশ্বময় সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি ক্যাম্পেইন, যা প্রতিবছর ১৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্বজুড়ে ডায়াবেটিস রোগ ব্যাপক হারে বেড়ে যাওয়ায়, বিশ্ব ডায়াবেটিস ফেডারেশন (আইডিএফ) ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ১৯৯১ সাল-এ ১৪ নভেম্বরকে ডায়াবেটিস দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

এদিন বিজ্ঞানী ফ্রেডরিক বেনটিং জন্ম নিয়েছিলেন এবং তিনি বিজ্ঞানী চার্লস বেস্টের সঙ্গে একত্রে ইনসুলিন আবিষ্কার করেছিলেন বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস হলো ডায়াবেটিস সম্পর্কে বিশ্বময় সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি ক্যাম্পেইন, যা প্রতি বছর ১৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়।

সারাবিশ্বের ন্যায় চাঁদপুরেও চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালের আয়োজনে ‘আসুন, পরিবারকে ডায়াবেটিসমুক্ত রাখি’ এ স্লোগানে দুই দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যে বিনামূল্যে ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা সেবা, র‌্যালি এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ১৩ নভেম্বর বুধবার মৈশাদীতে বীর প্রতীক মমিন উল্লাহ পাটওয়ারী একাডেমীতে বিনামূল্যে ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়। হাসপাতালের আইটি অফিসার উজ্জ্বল হোসাইনের সঞ্চালনায় কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মমিন উল্লাহ পাটওয়ারী বীর প্রতীক। বিনামূল্যে ডায়াবেটিস রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমের আওতায় ৩৭৫ জন রোগীকে সেবা দেয়া হয়। কার্যক্রমে সেবা প্রদান করেন চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ সানজিদা ইসলাম ও ডাঃ শাহ আমানত উল্লাহ পাভল।

উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল আজম, গণসংযোগ কর্মকর্তা নাছিমা আক্তার, হিসাবরক্ষক শিপন বেপারী, সিনিয়র স্টাফ নার্স সুমিতা আক্তার, ল্যাব এটেনডেন্ট সাদ্দাম হোসেন, অফিস সহায়ক মোঃ আবুল হাসান খান প্রমুখ।

১৪ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতাল প্রাঙ্গণ থেকে সিভিল সার্জন মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহর নেতৃত্বে র‌্যালি বের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাসপাতাল প্রাঙ্গণে এস শেষ হয়। এরপর হাসপাতালের স্বাস্থ্য প্রশিক্ষণ ক্লাসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপ্রধান ছিলেন চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক আলহাজ্ব মোশতাক হায়দার চৌধুরী।

চাঁদপুর ডায়াবেটিক হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল আজমের পরিচালনায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাসপাতালের পেশ ইমাম মাওঃ মোঃ শাহজালাল প্রধানীয়া। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সিভিল সার্জন ও চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতির সহ-সভাপতি মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ।
শুরুতে প্রতিপাদ্য বিষয়ের উপর মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন হাসপাতালের নিউট্রিশন অফিসার মোঃ মাজহারুল হক চৌধুরী।

সভায় প্রধান অতিথি সিভিল সার্জন ও চাঁদপুর ডায়াবেটিক সমিতির সহ-সভাপতি মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, ডায়াবেটিক বর্তমান বিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করছে। নাগরিক জীবনের ব্যস্ততায় আজ ডায়াবেটিস রোগ মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। বিশ্বে যে হারে ডায়াবেটিস রোগী বৃদ্ধি পাচ্ছে তা আমাদের জন্যে হুঁশিয়ারি স্বরূপ। তিনি আরো বলেন, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে হলে সবার আগে আমাদের সচেতন হতে হবে। সচেতনতা ও পরিকল্পিত খাদ্যাভাসের মাধ্যমেই এ রোগ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রণে রাখলে একজন মানুষ ভালোভাবে জীবনযাপন করতে পারে।

আর নিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস অন্ধত্ব, হৃদরোগ, কিডনী রোগ, স্ট্রোক ও পঙ্গুত্বের মতো কঠিন রোগের ঝুঁকি অনেকগুণ বাড়িয়ে দেয়। তাই প্রত্যেকটি ডায়াবেটিক রোগীর উচিত এই রোগ সম্পর্কে সচেতন হওয়া। বর্তমান নগরায়ণের ফলে সারাবিশ্বেই ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলছে। তিনি আরো বলেন, জেলার মধ্যে অত্র হাসপাতালটি সুশৃঙ্খলভাবে ডায়াবেটিস সেবা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মোঃ জাহেদ পারভেজ চৌধুরী। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন পরিচালনা পর্ষদের সদস্য অধ্যাপক মোহাম্মদ হোসেন খান, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, সুভাষ চন্দ্র রায়, ডাঃ এসএম মোস্তাফিজুর রহমান, আজীবন সদস্য ও চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া জীবন, প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন।

উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা পর্ষদের সদস্য তমাল কুমার ঘোষ, আজীবন সদস্য অ্যাডঃ কামাল উদ্দিন আহমেদ, রোটাঃ খোরশেদ আলম পাটওয়ারী কাঞ্চন, রোটাঃ বাবু লাল কর্মকার, রোটাঃ ফণী ভুষণ চন্দ, রোটাঃ মাহমুদা খানম, রোটাঃ মফিজ উদ্দিন সরকার, রোটাঃ রহিমা বেগম, এমওয়াই জাকারিয়া, হাসপাতালের চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

ইন্টারনেট কানেকশন নেই