Home / উপজেলা সংবাদ / হাজীগঞ্জ / হাজীগঞ্জে দুই দফায় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে এম এ মতিনের দাফন

হাজীগঞ্জে দুই দফায় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে এম এ মতিনের দাফন

হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি আসনের সাবেক চার বারের এমপি এম এ মতিনের দুই দফা জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

২৬ মে মঙ্গলবার সকাল পৌনে নয়টার দিকে ঢাকায় একটি পাইভেট হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করে। একই দিন বাদ আছর দুই দফা জানাজা টোরাগড় মুন্সী বাড়ীতে অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়, করোনা ভাইরাসের উদ্ভুত পরিস্থিতির কারনে চাঁদপুর -৫ (হাজীগঞ্জ- শাহরাস্তি) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এম এ মতিন স্যারের জানাজায় সর্বোচ্চ ৫০ জন অংশগ্রহণ করতে পারবে। দুই কাতারে ২০/২৫ জন করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াতে হবে। আর জানাজার নামাজ হবে হাজীগঞ্জ পৌরসভার টোরাগড় গ্রামের মুন্সী বাড়ীতে। পরে সেখানে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

এই নিদ্দেশনা জানাজায় অংশগ্রহন কারী নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে বলা হলেও এম এ মতিনের বক্ত ও নেতাকর্মীদের চাপে সামাজিক দূরত্ব চোঁখে পড়েনি।

হাজীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন রনি বলেন, করোনা পরিস্তিতি থেকে সংক্রামণ এড়াতে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। প্রতি কাতারে ২০/২৫ জন দাঁড়াতে পারবে। সর্বোচ্চ ৫০ জন মুসল্লী অংশ নিতে পারবেন। সেই নিয়মে মানুষ জানাজায় অংশগ্রহন করেছে। আগে থেকে প্রয়াত এ নেতার বাড়ীতে জনসমাগম ঠেকাতে টোরাগড় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

তিনি ১৯৪৩ সালের ১৪ই মার্চ চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ পৌরসভার টোরাগড় গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারের জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মরহুম আলহাজ্ব খান সাহেব জুনাব আলী মুন্সী তদানীন্তন পাকিস্তান আইন পরিষদের সদস্য এম এল এ ছিলেন। তার জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা আনোয়ার হোসেন মিয়া কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য ছিলেন।

প্রতিবেদক:জহিরুল ইসলাম জয়,২৬ মে ২০২০

ইন্টারনেট কানেকশন নেই