Home / উপজেলা সংবাদ / হাজীগঞ্জ / হাজীগঞ্জে এনজিওর টাকা নিয়ে দোকান-বসতঘর লুটের অভিযোগ
chandpur news
প্রতীকী

হাজীগঞ্জে এনজিওর টাকা নিয়ে দোকান-বসতঘর লুটের অভিযোগ

চাঁদপুরে হাজীগঞ্জে এনজিও’র টাকা নিয়ে বসত ও দোকান ঘরের মালামাল লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার গন্ধর্ব্যপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

প্রতিবাদ করতে গিয়ে ঘরের মালিক ও স্ত্রী গুরুতর জখম হয়েছে।

জানা যায়, ৩৫ লাখ টাকা এনজিও’র চেক ডিজঅনার মামলাকে কেন্দ্র করে মোহাম্মদপুর পূর্ব পাড়া মিয়া গাজী বাড়ির শাহাজাহান মিয়ার ঘরে একই গ্রামের ১৫-২০ জন মিলে এ হামলা ও লুটতরাজ চালায়। এতে ঘরের মালিক শাহাজাহান ও স্ত্রী পান্না বেগম গুরুতর যখম হয়ে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মিয়া গাজী বাড়ির আ.রব মিয়ার মেয়ে রহিমা বেগম উক্ত গ্রামের বিভিন্ন মহিলাকে এনজিও সংস্থা থেকে কিস্তি উঠাতে সাহায্য করে। কিন্তু পরবর্তীতে ওই সব কিস্তি চালাতে না পেরে গ্রæপ লিডার হিসাবে রহিমা বেগমের ওপর চাপ পড়লে সে এলাকা থেকে গা ডাকা দেয়।

এ ঘটনায় রহিমা বেগমকে বাদী করে ৩৫ লাখ টাকার চেক ডিজঅনারের মামলা করলে তা চাঁদপুর আদালতে মামলা চলমান থাকে। রহিমা বেগমকে না পেয়ে তার ভাই শাহাজাহান মিয়ার বসত ঘর ও দোকানে হামলা ও লুটতরাজ চালায় প্রতিপক্ষরা। ঘর ও দোকানের সকল মালামাল জমর্দ্দার বাড়ীর শহীদ উল্ল্যা’র ঘরে নিয়ে রাখে বলে জানা যায়।

শাহাজাহান মিয়া বলেন, ‘আমি গ্রামে দোকানদারি করে সংসার চালাই। আমার বোন রহিমার সাথে আমার কোনো যোগাযোগ নেই। এ বিষয়ে তারা আদালতে মামলা করেছে। বুধবার তারা হঠাৎ করে আমার বসতঘর ও দোকানের মালামাল লুট করে আমাদেরকে মেরে আহত করেছে।

এ বিষয়ে প্রতিপক্ষদের সাথে জানতে চাইলে তারা বলেন, ‘বিভিন্ন এনজিও থেকে কিস্তি উঠিয়ে আমরা প্রায় নিঃস্ব হয়ে গেছি। শাহাজাহানের বোন রহিমা আমাদের সাথে প্রতারণা করেছে । তাই আমরা তার ভাইয়ের মালামাল আটকে রেখেছি।’

প্রতিবেদক- জহিরুল ইসলাম জয়
: আপডেট, বাংলাদেশ সময় ০৯:১০ পিএম, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার
ডিএইচ

শেয়ার করুন
x

Check Also

অবৈধ যৌনাচারের জন্যে ধ্বংস হওয়া জাতির করুণ গল্প

মার্শেলাস, ...