Home / শীর্ষ সংবাদ / হাজীগঞ্জে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে শিশু মৃত্যুর ঘটনা

হাজীগঞ্জে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে শিশু মৃত্যুর ঘটনা

চাঁদপুর হাজীগঞ্জে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে শিশু মৃত্যুর ঘটনা। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও স্থানীয় সূত্রমতে গত প্রায় দেড় মাসে ২০-২২ জন শিশু পানিতে ডুবে মৃত্যুবরণ করেছে। আর এতে করে অভিভাবকদের মাঝে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর জন্যে প্রধানত দায়ী অভিভাবকগণের অসচেতনতা কারণে মনে করছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে পানিতে ডুবে মারা যাওয়া শিশুদের বয়স সাধারণত ২ থেকে ৫ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি।

জানা যায়, গত ২৭ নভেম্বর নিজ পুকুরের পানিতে ডুবে সদর ইউনিয়নে সুবিদপুর গ্রামে শাখাওয়াত হোসেন (২), বাকিলা ইউনিয়নের খলাপাড়ায় ফয়সাল হোসেন, ১৯ নভেম্বর হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন রান্ধুনীমুড়া গ্রামে মারওয়া আক্তার জারা (৩), ১৬ নভেম্বর বদরপুর গ্রামে ইনতিয়া ইসলাম ইভা (৫) ও ৮ নভেম্বর হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নে বলিয়া গ্রামে ফারজানা (২), ৬ নভেম্বর পৌরসভাধীন কংগাইশ গ্রামে আব্দুল্লাহ (২) একই দিনে সদর ইউনিয়নের বাড্ডা গ্রামে সায়মা আক্তার (২), ৪ নভেম্বর কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়নের রামপুর-নওহাটা গ্রামে সাকিবুল হাসান (৭) এবং ২ নভেম্বর বড়কুল পূর্ব ইউনিয়নে বড়কুল গ্রামে কুলসুমা আক্তার (২) মারা যায়।

এছাড়াও গত ২ অক্টোবর পুকুরের পানিতে ডুবে দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়নের মালাপাড়া গ্রামে আনোয়ার হোসেন (২), ৪ অক্টোবর পৌরসভাধীন মকিমাবাদ গ্রামে সায়মুন হোসেন (৪), ৬ অক্টোবর পনিশাইর গ্রামে রাহুল (৮) ও একইদিনে বড়কুল পশ্চিম ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামে আব্দুর রহমান (২), ১০ অক্টোবর রাজারগঁাও গ্রামে আশরাফি (৬) মারা যায়। ১৪ অক্টোবর পুকুরের পানিতে ডুবে কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়নের নওহাটা গ্রামে ইভা আক্তার (৩) ও একইদিন রামপুর গ্রামে আব্দুল্লাহ্ আল মাহি (৪), ২০ অক্টোবর রাজারগঁাও ইউনিয়নে পশ্চিম রাজারগাও গ্রামে একই বাড়ির ও একই সময়ে ফাহিম (১১) ও নাজমুল হাসান (৯), ২১ অক্টোবর গন্ধবর্যপুর উত্তর ইউনিয়নের পালিশারা গ্রামে আমেনা বেগম (৯০), ২৬ অক্টোবর পনিশাইর গ্রামের আয়ান (৩) ও ২৭ অক্টোবর বড়কুল পূর্ব ইউনিয়নের ফারিহা সুলাতানা (১৫ মাস) মারা যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এস.এম. সোয়েব আহমেদ চিশতী জানান, পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যু প্রতিরোধে ৫ বছরের বেশি বয়সী শিশুদের সাতার শেখানো এবং ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদের চোখে চোখে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে পারিবারিকভাবে সচেতনতা জরুরি। বাবা-মাকে আরো বেশি সচেতন ও সতর্ক হওয়ার তাগিত দেন এ কর্মকর্তা।

প্রতিবেদকঃ জহিরুল ইসলাম জয়,৩ ডিসেম্বর ২০২০