Home / উপজেলা সংবাদ / মতলব উত্তর / সুজাতপুর জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার উদ্বোধন

সুজাতপুর জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার উদ্বোধন

চাঁদপুর মতলব উত্তর উপজেলা সুজাতপুর বাজারে আবুল হোসেন সুপার মার্কেট (এস এ টাওয়ারে) সুজাতপুর জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।

১৫ জানুয়ারি বুধবার সকালে মতলব উত্তর উপজেলা সুজাতপুর বাজারে আবুল হোসেন সুপার মার্কেট (এস এ টাওয়ারে) সুজাতপুর জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ মিলাদ মাহফিল দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক,আলহাজ্ব সুরুজ আলী লস্কর। উক্ত মিলাদ মাহফিল ও দোয়ার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইসলামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাজেদুল হোসেন বাবু বাতেন, এসএ টাওয়ারের মালিক ও অলিপুর উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি সাইজ উদ্দিন আহমেদ, এস এ টাওয়ার এর পরিচালক নিজাম উদ্দিন প্রধান, ছেংগারচর বাজার বণিক সমবায় সমিতি লিঃ সাবেক সভাপতি শাহ আলম প্রধান, সুজাতপুর জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও রাজুর কান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এসএমসি সাবেক সভাপতি শাহ আলম লস্কর, ছেংগারচর বাজার জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ব্যবস্থাপনা পরিচালক কুলসুম আক্তার সুমনা, আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ রবিউল আওয়াল রনি ,মমরুজ কান্দি সপ্তগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আলমগীর হোসেন সরকার, সুজাতপুর বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শরীফ সরকার, সমাজ সেবক আলী আহমদ মেম্বার, শামীম সরকার, খোরশেদ আলম ভূট্টু, হাসানুল ইসলাম সিকন, আলম ভান্ডারী, শিমুল সরকার প্রমূখ।

সুজাপুর হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহ আলম লস্কর জানান, এ লাকার মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবার এক নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে গড়ে তোলা হবে। সত্যিকারের স্বাস্থ্য সেবার উদ্দেশ্যে হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার চালু করা হয়েছে। আবাসিক চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা সেবা দেওয়া হবে।

তিনি জানান ১০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে সার্জন দ্বারা অত্যাধুনিক ডিজিটাল মেশিনের মাধ্যমে অপারেশন করা হবে। স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি বেশ পরিচ্ছন্ন ও মনোরম পরিবেশের। চিকিৎসকদের জন্য আলাদা কক্ষ, রোগীদের জন্য ওয়েটিংরুম, ফার্মেসি, রোগীদের কক্ষ সবকিছুই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন।

ঘরের কাছে এমন একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র থাকায় অনেক উপকার হবে এ এলাকার মানুষের। বিশেষ করে নারী ও শিশুদের চিকিৎসাসহ জরুরি সেবাগুলো সহজেই এখান থেকে পাওয়া যাবে।

কামাল হোসেন খান