Home / চাঁদপুর / চাঁদপুরে অসুস্থ বৃদ্ধের বিরুদ্ধে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ : নেপথ্যে ভাড়াটিয়া দ্বন্দ্ব
চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে

চাঁদপুরে অসুস্থ বৃদ্ধের বিরুদ্ধে শিশু ধর্ষণের অভিযোগ : নেপথ্যে ভাড়াটিয়া দ্বন্দ্ব

চাঁদপুরে শয্যাশায়ী ৫০ বছরের অসুস্থ বৃদ্ধ কর্তৃক ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। শিশু মেয়েটির পরিবারের অভিযোগ, বাড়ির মালিক কর্তৃক মুখ চেপে ধর্ষণ করা হয়েছে।

অপর দিকে অভিযুক্তেরর পরিবারের দাবি ৩ মাসের বকেয়া ভাড়া চাওয়াকে কেন্দ্র করে সামাজিকভাবে হেয় করতেই স্থানীয় একটি মহলের চক্রান্তে এমন কুৎসা রটানো হচ্ছে। গত ২৫ মে ঈদের দিন রাতে চাঁদপুর শহরের গুয়াখোলা রোড়স্থ কাদির বেপারীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার আসিবুল আহসান চৌধুরী জানান, ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে শিশুটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তবে আমরা তার মেডিকেল চেকআপ করে ধর্ষণের কোনরূপ আলামত পাইনি। শিশুটি সম্পূর্ণ সুস্থ্য থাকায় একদিন পরেই তাকে ছাড়পত্র দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

শিশুর পিতা সেলিম গাজী জানান, ঈদের দিন রাতে বাড়ির মালিক আলমগীর গাজী আমার শিশু মেয়েটিকে মুখ চাপা দিয়ে ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে মেয়েকে চাঁদপুর মডেল থানায় নিয়ে গেলে ওসি স্যারের নির্দেশে হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে থানায় শিশু নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযুক্ত আলমগীর বেপারী স্ত্রী বলেন, ৫ বছর ধরে এই পরিবারটি আমাদের বাড়িতে ভাড়া থাকে। আমরা তাদের নিজের সন্তানের মতো দেখি, এবং তাদের সন্তানকে নাতি হিসেবে আদর করি। পাশাপাশি ঘর হওয়াতে শিশুটি বেশিরভাগ সময় আমাদের ঘরে থেকে আমার অসুস্থ্য স্বামীর সাথে খেলা করতো।

তিনি আরো জানান, আমার স্বামী গত ৪/৫ মাস ধরে শয্যাশায়ী। তিনি গাছ থেকে পড়ে তার কোমড়ের হাড় ভেঙ্গে যায়। প্রায় ২ মাস ঢাকায় চিকিৎসাধিন ছিলেন। বর্তমানে বাড়িতেই বিছানায় পড়ে আছেন। গাছ থেকে পড়ে যাবার পর থেকে তিনি অনেকটাই মানসিক ভারসাম্যহীন। প্রায়ই পাগলামি করেন আবার কখনো কখনো আমাদেরকেও চিনেন না। তার সমস্ত চিকিৎসাপত্র আমাদের কাছে রয়েছে। আমার স্বামী যদি অপরাধ করে থাকে তবে তার বিচার হোক, কিন্তু ঘটনাটি যদি সাজানো হয়, আমরাও প্রশাসনের কাছে এই অসম্মানের বিচাই চায়।

শিশু ধর্ষণের অভিযোগ বিষয়ে সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে আমরা তার কোন ধষর্ণের আলমত পাইনি।

এদিকে চাঁদপুরে ধর্ষণচেষ্টা মামলার অভিযুক্ত সেই বৃদ্ধকে মামলা হওয়ার দুই ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ২৮ মে বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় জেলা শহরের গুয়াখোলা এলাকা থেকে মজিবুর রহমান বেপারী নামে ৭০ বছরের এই বৃদ্ধকে গ্রেপ্তার করে সদর মডেল থানা পুলিশ।

এর আগে আজ বিকেল ৩টায় ঘটনার শিকার সাত বছরের শিশুটির মা তার মেয়ের ওপর যৌন নির্যাতন করা হয়েছে, এমন অভিযোগ এনে বৃদ্ধ মজিবুর রহমান বেপারীর বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. হারুনুর রশিদ জানান, শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের দুই ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে।

সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহেদ পারভেজ চৌধুরী জানান, শিশু ধর্ষণের চেষ্টা মামলা হওয়ার পর থেকেই পুলিশকে দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামিকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেওয়া হয়। সেই প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত মজিবুর রহমান বেপারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ৭০ বছরের এই বৃদ্ধকে শিশুটি নানা বলে সম্বোধন করত। স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, গত কয়েক মাস ধরে বাসা ভাড়া না দেওয়ায় বাড়িওয়ালা বৃদ্ধ মজিবুর রহমান বেপারীর সঙ্গে শিশুটির বাবা মায়ের বিরোধ চলছে। ফলে ঘটনাটি ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ না অন্য কিছু তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সূত্র আরো জানায়, এই বৃদ্ধ স্নায়ু রোগে আক্রান্ত। তাছাড়া কথাও বলছে এলোমেলো। এই নিয়ে প্রাথমিক তদন্তেও পুলিশকে বেগ পেতে হবে। তবে শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি কি হয়, তা দেখার অপেক্ষায় এলাকাবাসী। এদিকে, বিকেলেই গ্রেপ্তার হওয়া আসামিকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ২৮ মে ২০২০

ইন্টারনেট কানেকশন নেই