Home / উপজেলা সংবাদ / শাহরাস্তি / শাহরাস্তিতে দুই সন্তানের জননীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য : স্বামী আটক
Kara jail
প্রতীকি ছবি

শাহরাস্তিতে দুই সন্তানের জননীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য : স্বামী আটক

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে দুই সন্তানের জননীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য সৃষ্টি হয়েছে। এই মৃত্যু নিয়ে এলাকায় নানান কথা হচ্ছে। কেউ বলছে পরকীয়ার বলি আবার কেউ বলছে কৌশলে মারা হয়েছে ওই গৃহবধূ। এমন চাঞ্চল্যকর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে শাহরাস্তি উপজেলা পৌর শহরের ৭ নং ওয়ার্ডের নিজমেহার রাড়ী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, ওই বাড়ির আমির হোসেনের পুত্র মোহাম্মদ নূরুল ইসলাম ( ৩৫ ) সঙ্গে রায়শ্রী দক্ষিণ ইউপির ঘুঘুর চপ গ্রামের ডাক্তার আব্দুল মালেক মিয়ার বাড়ি রুহুল আমিনের মেয়ে খালেদা আক্তার কমলা (২৮ ) বিবাহ হয়। স্বামী নুরুল ইসলাম পৌর শহরের ঠাকুর বাজারে মিম ডেকোরেটর প্রতিষ্ঠান ব্যাবসা করছিলেন। এর মধ্যে মাহি (৮) নাহিদ (৪) পুত্রসন্তান হয় তাদের ।

২৫ মে সোমবার গৃহবধু কমলা রাতের খাবার খেয়ে পানি পান করে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তার আত্মীয়রা দ্রুত শাহরাস্তি হাসপাতালে নিয়ে আসে। ওই রাতেই প্রাথমিক চিকিৎসা করিয়ে গৃহবধূ কমলাকে আবার বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যায় তারা।

একইভাবে গত ২৮ মে বৃহস্পতিবার আবার সে অসুস্থতা বোধ করলে শাহরাস্তি হাসপাতালে নিয়ে আসে। ওই সময় কর্তব্যরত ডাক্তার রোগী কমলার অবস্থার অবনতি হলে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে চারদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার ভোররাত গৃহবধূ স্বাস্থ্যের অবনতি হলে আত্মীয়রা দ্রুত ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করে। পরে পথে গৃহবধু কমলার মৃত্যু হয়। দ্রুত মরদেহ শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে আসে।

ওই মৃত্যুর কথা এলাকায় জানাজানি হলে বেরিয়ে আসে নানান কথা। একপর্যায়ে গৃহবধূর মৃত্যুর বিষয়টি শাহরাস্তি থানার পৌঁছালে ওসি তদন্ত মোঃ শহিদুল ইসলাম উপ-পরিদর্শক ইদ্রিস মিয়া ও গোলাম মোস্তফা সঙ্গীয় ফোর্স ওই স্থানে হাজির হয়ে সুরতহাল সংগ্রহ শেষে মরদেহ থানায় নিয়ে আসে।

এদিকে গৃহবধূর মৃত্যুর ঘটনায় কেউ বলছে ২৫ তারিখ রাতে খাবার শেষে সে যে পানি পান করেছে তার মধ্যে কিছু একটা ছিল যাতে গৃহবধূ অসুস্থ হয়ে পড়ে। ওই খাবার আবিষ্কার করতে গিয়ে নতুন কথার জন্ম হয়। কমলার স্বামী নুরুল ইসলাম পাশ্ববর্তী বাড়ির জনৈক ব্যক্তির কন্যা স্থানীয় হাসপাতালে কর্মরত স্বামী পরিত্যাক্তা এক মহিলার সঙ্গে পরকীয়া লিপ্ত রয়েছেন।

বিষয়টি অধিকতর আলোচিত হওয়ায় প্রশাসন তার স্বামী নুরুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। নিহত গৃহবধূর পিতা রুহুল আমিন জামাতাকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করে।

প্রতিবেদক:মোঃ জামাল হোসেন,৩ জুন ২০২০

ইন্টারনেট কানেকশন নেই