Home / উপজেলা সংবাদ / কচুয়া / যোগদানের তিন মাসে সাফল্য অর্জন করেই যাচ্ছেন কচুয়ার ওসি

যোগদানের তিন মাসে সাফল্য অর্জন করেই যাচ্ছেন কচুয়ার ওসি

চাঁদপুরে কচুয়া থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বীর মুক্তিযুদ্ধার সন্তান, মোহাম্মদ মহিউদ্দিন অপরাধ দমনের মাধ্যমে উপজেলায় শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে একজন কৌশলী পুলিশ কর্মকর্তায় পরিণত হয়েছেন। জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং, মাদক, আইন-শৃঙ্খলা শান্তি-রক্ষা, জুয়া, পারিবারিক কলহ’সহ বিভিন্ন সামাজিক, পারিবারিক ও রাজনৈতিক অপরাধ থেকে কচুয়া উপজেলাকে অপরাধমুক্ত করতে নানান কৌশল অবলম্ভন করে অল্প দিনের মধ্যেই কচুয়া উপজেলাবাসীর কাছে প্রিয় ওসি’র সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। তিনি হয়ে উঠছেন কচুয়া উপজেলার প্রিয় পুলিশ কর্মকর্তা। জনসেবায় ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় তিনি যেন সকলের কাছে অনুকরণীয় ব্যক্তিত্বে পরিণত হয়েছেন।

উপজেলায় অপরাধ দমনে সার্বিক নিরাপত্তাদান ও কর্মতৎপরতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুলিশিং সেবার মানকে মানুষের কল্যাণে পৌঁছে দিতে জনপ্রতিনিধি,সাংবাদিক,বিট পুলিশিং কমিটি ও গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় সাহসিকতার সাথে বিভিন্ন অপরাধ ও সমস্যা মোকাবেলা করে পুলিশি সেবার মান সর্বসাধারণের কাছে পৌঁছে দিয়ে এরই মধ্যে তিনি সবার কাছে সমাদৃত। কচুয়াকে সকলের সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় মোকাবেলা করতে হবে।

ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন তাঁর সু-কৌশলী দক্ষতায় জনগনের সাথে ভালো সম্পর্ক গড়ে তুলে ‘পুলিশ জনগনের সেবক, সেবাই পুলিশের ধর্ম’, পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ’ এটা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। কচুয়াকে বিভিন্ন অপরাধ মুক্ত করে আধুনিক থানায় পরিণত করতে তিনি এবং তার অধিনস্থ পুলিশ বিভাগের অন্যান্য কর্মকর্তা ও সদস্যগন নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন।

‘পুলিশ জনগনের সেবক, সেবাই পুলিশের ধর্ম’ এটা অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন কচুয়া থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মরত (ওসি) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন নেতৃত্বে থাকা এস.আই, এ.এস.আই ও নারী-পুরুষ পুলিশ সদস্যরা।

মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ওসি হিসেবে কচুয়াতে বিগত ৯ নভেম্বর ২০২০ যোগদানের পর থানায় বিভিন্ন স্তরের দালালি লক্ষনীয় ভাবে কমেছে। গা ডাকা দিয়েছে মাদক কারবারিসহ বিভিন্ন অপরাধীরা। বন্ধুসুলভ, জনমুখী ও হাসিঁমুখে সেবা দেয়ায় পুলিশের ভাবমূর্তি দিন দিন সমুন্নত হচ্ছে। পূর্বের যে কোন সময়ের চেয়ে অনেকটা শান্তিতে জীবন যাপন করছেন কচুয়াবাসী। সুদক্ষ ওসি তাঁর কৌশলী বুদ্ধিমত্তা দিয়ে অপরাধ দমনের ফলে জনমনে শান্তি বিরাজ করছে। কচয়া থানা পুলিশ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, জনবহুল এলাকা ও মসজিদ-মাদরাসায় জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাস, বাল্য বিবাহ, মাদক, বেদখল, জুয়া, পারিবারিক কলহসহ বিভিন্ন অপরাধ থেকে কচুয়া উপজেলাকে মুক্ত রাখতে নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আর এর সুফল ভোগ করছেন কচুয়া উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ।

বিশেষ করে ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন কচুয়া থানায় যোগদানের পর অনেকটা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন। আর এই চ্যালেঞ্জের মুখেই ১৪ ফেব্রুয়ারি কচুয়া পৌরসভা নির্বাচন কোনো ধরনের বিশৃংলা ছাড়া প্রথম বারের মতো ইভিএম পদ্ধতিতে শান্তি পূর্নভাবে অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে কচুয়া থানা পুলিশের ভূমিকা ছিলো প্রশংসনীয়।

পরদিন ১৫ ফেব্রুয়ারি কচুয়ার বাচাঁইয়া ব্রিকফিল্ড এলাকায় গৃহবধূ লাভলী হত্যায় ঘটনায় পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তার স্ত্রীকে হত্যার স্বীকারোক্তি দেন আটক হওয়া স্বামী শাহাদাত হোসেন এবং পরে একই ভাবে বিজ্ঞ আদালতে শাহাদাত তার স্ত্রী লাভলীকে হত্যার দায় স্কীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধী দেন।

এছাড়া ৫ জানুয়ারী কচুয়া-সাচার সড়কের সাজিরপাড় এলাকার বুধুন্ডা গ্রামের সৌদী প্রবাসী হাজী মো. রফিকুল ইসলামের নতুন বাড়ীতে দূর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনায় রহস্য উদঘাটনে সন্দেহভাজন স্থানীয় ২ ডাতাক সদস্য গ্রেফতার করে ব্যাপক প্রশংসীত হয়েছেন।

প্রতিবেদক:জিসান আহমেদ নান্নু,২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১