Home / উপজেলা সংবাদ / ফরিদগঞ্জ / ফরিদগঞ্জ যত্রতত্র পার্কিং, যানজটে অতিষ্ঠ পথচারীরা

ফরিদগঞ্জ যত্রতত্র পার্কিং, যানজটে অতিষ্ঠ পথচারীরা

চাঁদপুরে ফরিদগঞ্জ উপজেলা সদর বাজারে যানজটে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন পথচারী, শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষ। যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং, সড়ক ও ফুটপাত দখল করে দোকান স্থাপন এবং মালামাল রাখায় এ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বাসস্ট্যান্ড থেকে লিংক রোড দিয়ে আম্বিয়া-ইউনুছ ফাউন্ডেশন হয়ে বাজারের পূর্ব মাথা পর্যন্ত এবং চান্দ্রামুখী কেরোয়া ব্রিজ পর্যন্ত অংশের যানজট ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। আর এজন্য অটোরিকশা ও কেরোয়া মোড়ের দুটি দোকানকে বিশেষভাবে দায়ী করছেন পথচারীরা। উপজেলা সদরে অবস্থিত ফরিদগঞ্জ এ আর পাইলট মডেল সরকারি উচ্চবিদ্যালয়, এ আর পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সরকারি ডিগ্রি কলেজ, ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদ্রাসা, বালিকা দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উত্তর সরকারি বালক বিদ্যালয়, কিন্ডার গার্টেন ও মহিলা মাদ্রাসাসহ উপজেলা প্রশাসনের ২২/২৩টি দপ্তর। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী ও অফিসে কাজে আসা শত শত লোক প্রতিদিন সময়ের অপচয়সহ ঝুঁকি নিয়ে এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করছেন।

পথচারী ঋষি কেশ ও আনিছুর রহমান বলেন, সড়কের ওপর যত্রতত্র পার্কিং, সড়ক ও ফুটপাত দখল করে দোকান স্থাপন এবং সড়ক ও ফুটপাতে মালামাল রাখায় যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। একে তো সরু রাস্তা তার ওপর যে যার মতো করে কার্গো, ট্রাক, পিকআপ এবং ট্রলি থেকে মালামাল লোড-আনলোড করছে। ফলে প্রতিনিয়ত প্রায় আধা কিলোমিটার বাজারের পূর্ব ও পশ্চিমে যানজট লেগেই আছে।

যানজটের কারণে যাত্রী ও পথচারীরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। সিএনজি অটোরিকশা চালক আবুল বাশার ও আব্দুল খালেক বলেন, আমাদের গাড়ি রাখার জন্য কোথাও পার্কিংয়ের জায়গা নেই। তাই মোড়ে মোড়ে এবং ফুটপাতে গাড়ি রাখছি। প্রতিটি গাড়ি থেকে পৌর কর দিয়েও কোনো সুবিধা পাচ্ছি না।

যানজটের সত্যতা স্বীকার করে ওসি মো. শহিদ হোসেন বলেন, অটোরিকশার অনুমতি দেয় পৌর কর্তৃপক্ষ। তার পরেও নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শিউলী হরি জানান, পৌর মেয়রের সঙ্গে আলোচনা করে যানজট নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

ফরিদগঞ্জ করেসপন্ডেট,১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১