Home / উপজেলা সংবাদ / মতলব উত্তর / মতলবগামী যাত্রীবাহী লঞ্চে ডাকাতির ঘটনায় মামলা
ফাইল ছবি

মতলবগামী যাত্রীবাহী লঞ্চে ডাকাতির ঘটনায় মামলা

মেঘনা নদীর চাঁদপুরের মতলব উত্তর ও মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার মধ্যবর্তী স্থানে ‘এমভি মকবুল-২’ নামে যাত্রীবাহী লঞ্চে ডাকাতির ঘটনার ২১ ঘণ্টা পর মামলা হয়েছে।

২০ নভেম্বর শুক্রবার রাত আটটার পর মতলব উত্তর থানায় মামলাটি করেন লঞ্চটির এক যাত্রী। সীমানা জটিলতায় ওই মামলা নিতে বিলম্ব হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।

আরও পড়ুন…মেঘনায় মতলবগামী লঞ্চে ডাকাতি

মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসির উদ্দিন মৃধা বলেন, যাত্রীবাহী লঞ্চটিতে ডাকাতির ঘটনায় লঞ্চটির যাত্রী স্কুলশিক্ষক মো. হামিদ মিয়া অজ্ঞাতনামা ১০ থেকে ১২ জনকে আসামি করে মামলা করেন। ডাকাতেরা ওই ব্যক্তির নগদ টাকা ও মুঠোফোনের সেট ছিনিয়ে নেয় এবং তাঁকে মারধরও করে। স্কুলশিক্ষকের বাড়ি মতলব দক্ষিণ উপজেলার বাইশপুর গ্রামে।

ওসি মো. নাসির উদ্দিন মৃধা আরও বলেন, মেঘনা নদীর মতলব উত্তর থানা ও মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া থানার মধ্যবর্তী সীমানায় ওই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ কারণে সীমানা জটিলতায় মামলা করা অনেকটাই বিলম্ব হয়। মামলাটির তদন্ত শুরু হয়েছে এবং আসামিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার রাত নয়টায় ‘এমভি মকবুল-২’ লঞ্চটি দেড় শতাধিক যাত্রী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ টার্মিনাল থেকে মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনলের উদ্দেশে রওনা দেয়।

রাত ১১টায় লঞ্চটি মেঘনার মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া ও চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মধ্যবর্তী স্থানে পৌঁছালে ১০ থেকে ১৫ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাত দল স্পিডবোটে করে এসে লঞ্চে প্রবেশ করে। এ সময় ডাকাতেরা ফাঁকা গুলি ছুড়ে অস্ত্রের মুখে লঞ্চটির চালক ও যাত্রীদের জিম্মি করে ফেলে।

এরপর যাত্রীদের মারধর করে তাঁদের কাছ থেকে নগদ টাকা, ৫০-৬০টি মুঠোফোন ও বেশ কিছু স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

স্টাফ করেসপন্ডেট,২১ নভেম্বর ২০২০

ইন্টারনেট কানেকশন নেই