Home / বিনোদন / ‘পরিবারের বড় হওয়ায় ভাই-বোনদের দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে প্রেমের সুযোগ পাইনি’
বিয়ে দেবেন না
সাদিকা পারভীন পপি

‘পরিবারের বড় হওয়ায় ভাই-বোনদের দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে প্রেমের সুযোগ পাইনি’

বাংলাদেশি সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা সাদিকা পারভীন পপি। প্রায় দুই দশকের ক্যারিয়ারে অসংখ্য সুপারহিট সিনেমা উপহার দেন তিনি। পেয়েছেন একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের বহু প্রাপ্তি। তবে আজো বিয়ের পিঁড়িতে বসেননি তিনি। সম্প্রতি করোনার গল্প নিয়ে সিনেমায় অভিনয় করছেন নায়িকা সাদিকা পরাভীন পপি। শুটিং এর ফাঁকে এক টিভি সাক্ষাতকারের মুখোমুখি হয়ে নানা বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেন পপি।

প্রশ্ন: ভালোবাসার প্রজাপতি সিনেমায় কীভাবে দর্শকদের সামনে আসছেন?
পপি: করোনা মহামারিতে যারা সামনে থেকে কাজ করেছেন তাদেরকে নিয়ে সিনেমা। গল্পটা শুনেই রাজি হয়ে গেছি। আমার মনে হয়েছে ভালো কিছু দেখতে পারবে দর্শক। এই ছবিতে আমাকে দেখা যাবে চিকিৎসকের ভূমিকায়। এই মহামারিতে যারা সামনে থেকে কাজ করেছেন এই সিনেমা দিয়ে তাদের প্রতি কিছুটা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হবে বলে আমি মনে করি।

প্রশ্ন: দীর্ঘদিনের বিরতি শেষে আবারো চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু করেছেন।
পপি: মনে হচ্ছে নতুন একটা লাইফ শুরু করেছি। খুব ভালো লাগছে। এতো মানুষ একসাথে কাজ করছি। এতোদিন অনেকেই বেকার ছিল এখন অনেকে কাজের সুযোগ পাচ্ছে, এই ভালোলাগা বলে প্রকাশ করতে পারব না।

প্রশ্ন: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং জয়ও করেছেন। কেমন অনুভূতি হচ্ছে?
পপি: এটা আমার জন্য একটা বড় ফাইট ছিলো। যখন পজেটিভ রেজাল্ট আসলো তখনি খুব ভেঙ্গে পড়েছিলাম। তবে যতোটা না শারীরিকভাবে তার চেয়ে বেশি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলাম। বিশেষ করে আমার দারা যদি পরিবারের কেউ আক্রান্ত হয় সেটা নিয়ে বেশি চিন্তিত ছিলাম। যাক এখন মনে হচ্ছে যুদ্ধ জয় করেছি। আলহামদুলিল্লাহ এখন ভালো আছি। আর এই অভিজ্ঞতা সিনেমার ক্ষেত্রেও কাজে লাগবে।

আরও পড়ুন- সবার কাছে অনুরোধ, বিয়ের আগে আমাকে বিয়ে দেবেন না

প্রশ্ন : বাংলা চলচ্চিত্রকে আবারো পুরোনো চেহারায় ফিরে আসতে কোন কোন দিকে নজর দিতে হবে বলে আপনি মনে করেন।
পপি: এই ইন্ড্রাস্ট্রি এমনিতেই জৌলুস হারিয়েছে। করোনা এসে মরার উপর খাড়ার ঘা হয়েছে। এই শিল্পকে আবারো চাঙা করতে চলচ্চিত্রের স্বার্থেই সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। শুধু নিজেদের স্বার্থ দেখলে হবে না।

প্রশ্ন : সম্প্রতি চলচ্চিত্রের আঠারো সংগঠন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান এবং সভাপতি মিশা সওদাগরকে বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই বিষয়ে আপনার মতামত কি?
পপি: বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে আর কাউকে নিয়ে এতো সমালোচনা হয়নি। আমি এতো বছর সফলভাবে কাজ করার পরও আমার সমিতি আমাকে নিয়ে পলিটিক্স করেছে। শুধূ আমি না, এমন অনেকের সাথেই তারা এমন করেছে। ১৮৪ জন সদস্যদের সদস্যপদ বাতিল করেছে। আমি মনে করি সংগঠনগুলো মিলে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঠিকই করেছে।’

প্রশ্ন : জায়েদ খান এবং আপনার বিয়ের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল সম্প্রতি। আসলেই কি বিয়ে করছেন আপনারা?
পপি: ইন্ড্রাস্ট্রিতে কাজ করতে গেলে আমাদের সবার সাথেই ওঠাবাসা করতে হয়। সবার সাথেই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখতে হয়, যা আমার আছে। গসিপ করার জন্য এগুলো উঠেছে যার কোনো সত্যতা নেই। আমি আমার ক্যারিয়ার নিয়ে খুব সচেতন। কোনো কাজ করার আগে আমি একশবার ভাবি। আমার সুনাম যেনো ক্ষুন্ন না হয় আমি সেভাবে কাজ করি। শুধু এতটুকুই বলব কারো সাথে আমার কোনো খারাপ সম্পর্ক নেই। শুধু দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলব কোনো অযোগ্য পাত্র বা ব্যক্তির নাম আমার সাথে জড়িয়ে গসিপ করবেন না।

প্রশ্ন: তাহলে কবে বিয়ে করছে পপি?
পপি: রিলেশনে সৎ থাকাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। বিয়ের জন্য একজন সৎ যোগ্য লোক খুঁজছি। আমি পরিবারের বড় ছিলাম বলে ভাই-বোনদের দায়িত্ব আমার কাঁধে ছিল। ওদের মানুষ করেছি। তাই বিয়ের জন্য একটু সময় নিয়েছি। প্রেম করার সময়ও পাইনি। তবে হ্যাঁ বিয়ের ব্যাপারে আমার একটাই সিদ্ধান্ত যেদিন সৎ, যোগ্য, ভালো ছেলে পাব সেদিনই বিয়ে করব। আমাকে আমার কাজকে আমার পরিবারকে সম্মান করবে এমন একটা মানুষের জন্যই ওয়েট করছি।

বিনোদন ডেস্ক, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

ইন্টারনেট কানেকশন নেই