Home / লাইফস্টাইল / যে ১১টি কারনে ফ্রিল্যান্সারদেরকে পরিবারসহ সকলে ভাল জানে

যে ১১টি কারনে ফ্রিল্যান্সারদেরকে পরিবারসহ সকলে ভাল জানে

১১টি কারনে ফ্রিল্যান্সারদেরকে পরিবার ও চেনাজানা মানুষরা খুব ভাল জানে, আজকে আমরা সেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবো, আশা করি

লেখাটি পেশাগত কোন ফ্রিল্যান্সাররা পড়ে রাগ করবেন না। লেখাটি আমরা একজন খ্যাতনামা ফ্রীল্যান্সারের ফেসবুক স্টাটাস থেকে সংগ্রহ করেছি-

আগে জেনে নেই ফ্রীল্যান্সার কারা বা কাকে বলে?

উত্তরঃ ধরুন সারারাত কাজ করার পর সকালের নাস্তা সেরে আরাম করে ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন, অথবা বিকেলে গার্লফেন্ডের সাথে ডেটিং আছে তাই সেজেগুজে সবে মাত্র বেরোবেন, কিংবা কাজের চাপে অনেক দিন মুভি দেখা হয়না, এখন কোন কাজ নেই হাতে তাই আপনার পছন্দের মুভিটি আয়েশ করে দেখছেন, অথবা আজ রবিবার তাই কোন ক্লাইন্ট কাজ দেবেনা ভেবে বন্ধুদের বাসায় ডেকে আড্ডা দিচ্ছেন।

ঠিক তখন এক ক্লাইন্টের মেইল আসলো,
Hi Name,
How are you doing today? I have a simple job for you. I need you to finish this job within 5 hours. Let me know if you are available.
It’s little urgent!
Thanks
James Nichols
আর তখন আপনাকে রিপ্লাই করতে হলো,
Hello James,
I am doing great today! How about you? Yes, I am available and starting now. I hope this will be finished within 5 hours. I will let you know when I finish.
Thanks
Name
হ্যা ! এই রিপ্লাই টা যারা করে তারাই ফ্রিল্যান্সার।
 সোজাস্যাপ্টা কথায় বলতে গেলে ফ্রিল্যান্সার তাকেই বলে যিনি ঘরে বসে কোন কোম্পানীর অধিনে না থেকে অনলাইনে আয় করে থাকেন—

যে ১১টি কারনে ফ্রিল্যান্সারদেরকে পরিবার ও চেনাজানা মানুষরা খুব ভাল জানে

* ফ্রীল্যান্সাররা সাধারণত সকালের নাস্তা করে না ( ঘুম থেকে উঠে দুপুর ১ টায় ) … তাই বাপের খাওয়া খরচ কমে যায় ।
* ফ্রীল্যান্সাররা রাত জেগে কাজ করে তাই বাসায় চোর আসার সম্ভাবনা নাই
* কোন কারনে ডলারের দাম জানতে হলে , একজন ফ্রীল্যান্সার কে জিজ্ঞাসা করুন , পেয়ে যাবেন ।
* আপনার মেয়েকে বিয়ে দেয়ার জন্য যদি একজন চরিত্রবান ছেলে প্রয়োজন হয় তবে অবশ্যই একজন ফ্রীল্যান্সার ছেলে খুজে বের করুন ( ব্রাউজিং হিস্টোরি ছাড়া , চরিত্র একবারে ফক- ফকা )।
* ফ্রীল্যান্সার দের সাধারণত গার্লফ্রেন্ড কিংবা বয় ফ্রেন্ড থাকেনা। তাই বেশি ঝামেলাও নাই।
* ফ্রীল্যান্সাররা সাধারণত রাস্তা ঘাটে মেয়েদের দিকে তাকায় না … তাই চোখ ভাল থাকে ( ক্লায়েন্ট এর সাইটের স্লাইডারের মাইয়া গুলাকে খুব সুন্দর মনে করে ) ।
* ফ্রীল্যান্সাররা নিজের টাকায় চলে, তাই বাবা মার টেনশন কম ।
* বেশিরভাগ সফল ফ্রীল্যান্সারদের ই DSLR থাকে , তাই অনেক আপু ই এদের ভাও দেয়… ( বিশ্বাস না হইলে আসে পাশে দেখেন বেশিরভাগ সফল ফ্রীল্যান্সারদের ই DSLR আছে ) ।
* ফ্রীল্যান্সাররা প্রায় সময় বাসায় ই থাকেন , তাই প্রতিবশীদের কাছে ভাল একটা ইমেজ তৈরি হয় ।
* ছেলে ফ্রীল্যান্সাররা সাধারণত চুল কাটা, সেভ করার টাইম পান না তাই সেই খরচ টাও বেচে যায় ।
* রোজার দিনে আপনার বাসায় এলারম ঘড়ির প্রয়োজন নাই যদি আপনার বাসায় একজন ফ্রীল্যান্সার থাকে ।
—— এক নম্বর পয়েন্টে উল্লেখিত খরচ টা ফ্রীল্যান্সাররা অতিরিক্ত কারেন্ট বিল তুলে বাপের কাছ থেকে উসুল করে নেয়।—

(ফ্রিল্যান্সার নাহিয়ান এর ফেসুবক স্টাটাস থেকে সংগৃহিত)