Home / আন্তর্জাতিক / প্রেসিডেন্ট ওবামার রোমাঞ্চকর কাণ্ডে হতবাক বিশ্ববাসী

প্রেসিডেন্ট ওবামার রোমাঞ্চকর কাণ্ডে হতবাক বিশ্ববাসী

পৃথিবীর ক্ষমতাধর মানুষ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। প্রভাব প্রতিপত্তি আর খ্যাতি যশে দুনিয়া জোড়া সুনাম তার। এমন ক্ষমতাধর মানুষ গহীন বন জঙ্গল আর দুর্গম পাহাড় পর্বত চষে ঘুরে বেড়াচ্ছেন! অনেকটা সিনেমার গল্পের মতই নয় কি ? গল্পটা সিনেমার মত মনে হলেও এবার সেই অসাধ্য সাধন করেই দেখালেন দারুণ রোমাঞ্চ প্রিয় এই ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট । এমনকি সেই দুর্গম এলাকায় ভালুকের উচ্ছিষ্ট সাইমন মাছ খেয়েও সবাইকে তাক লাগালেন তিনি !

এবার আসি মুল গল্পে স্যাটেলাইট চ্যানেল ডিসকভারির বদৌলতে ‘অবাক মানুষ’ বিয়ার গ্রিলসের দুঃসাহসী রুদ্ধশ্বাস সব অভিযান এবং খাবার দাবার নিয়ে বৈচিত্রতা সারাবিশ্বের মত নজর কেড়েছে সবশ্রেনীর বাংলাদেশের দর্শকদেরও । ডিসকাভারি চ্যানেলে ‘ম্যান ভার্সাস ওয়াইল্ড’ অনুষ্ঠানটির জন্য তিনি ব্যাপক পরিচিত।

সম্প্রতি জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত এক কর্মসূচিতে অংশ নিতে তিনদিনের সফরে নিজ দেশের অঙ্গরাজ্য আলাস্কায় যান ওবামা। অঙ্গরাজ্যটি ভৌগোলিকভাবে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আলাদা, উত্তর গোলার্ধে কানাডার পশ্চিমের অবস্থিত। অ্যাডভেঞ্চার বা অভিযানপ্রেমিদের জন্য এলাকাটা খুব প্রিয়।

রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে না হোক কোথাও বেড়াতে গেলেও একজন প্রেসিডেন্টের খাবার মান ও নিরাপত্তা নিয়ে থাকে তুঘলকি কত কান্ড । কিন্তু সেদিকটা একেবারেই এড়িয়ে গেলেন ব্যাতিক্রমি এই প্রেসিডেন্ট । কিন্তু তাই বলে কাঁচা স্যামন? তাও আবার ভালুকের মুখের উচ্ছিষ্ট অংশ? মার্কিন মুল্লুকের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাই খেয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর দিলেন যখন তখন তো বিস্ময়ে হাঁ হবারই যোগাড় সবার !

কিন্তু বারাক ওবামার মুখে ভালুকের মুখের উচ্ছিষ্ট কেন? প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল অনলাইন জানিয়েছে, ওবামা আলাস্কার পথে বেরিয়েছিলেন এডভেঞ্চারের খোজে । আর সেই পথে পূর্বনির্ধারিত অভিযানের থাকা বিখ্যাত সেই মানব বিয়ার গ্রিলস সঙ্গ দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্টকে ।

একটি হেলিকপ্টারে করে ওবামা পাহাড় ঘেরা ছবির মতো একটি এলাকায় নামেন। নিরাপত্তাকর্মীদের দূরে রেখেই হাটতে শুরু করেন প্রেসিডেন্ট। একটু দূর যেতেই দেখলেন সেই বিখ্যাত বিয়ার গ্রিলস তাঁকে স্বাগত জানাতে আসছেন। ওবামাই তাঁকে ডাকলেন, ‘বিয়ার!’ বিয়ার বলেন, ‘হাই মিস্টার প্রেসিডেন্ট।’ ‘কেমন আছেন?’ ওবামার প্রশ্নের উত্তরে বিয়ার বললেন, ‘আপনি কেমন আছেন, স্যার?’ বিয়ারের পরিচিত ব্যাগপ্যাক কাঁধে চাপড় দিয়ে প্রেসিডেন্ট বললেন, ‘আপনার সঙ্গে দেখা করতে পেরে দারুণ লাগছে স্যার।’ বিয়ার উত্তর দিলেন, ‘দেখা করার জন্য কী চমৎকার জায়গা এটা!’ ওবামা চারদিকে নজর দিয়ে বলেন, ‘অসাধারণ!’

ওবামাকে নিয়ে পাথুরে পাহাড়ের পথ বেয়ে নদীর তীর ধরে হাঁটতে থাকেন গ্রিলস। একপর্যায়ে ওবামা গ্রিলসকে বলেন, ‘আপনার সঙ্গে কী আছে?’ গ্রিলস এবার খুলতে থাকেন ব্যাগ। বের করে নিয়ে আসেন স্যামন মাছের কিছু অংশ।

গ্রিল বলতে থাকেন, ‘আলাস্কা হচ্ছে ভালুক ও স্যামনের এলাকা। আমি এটাকে (স্যামন মাছের অংশ) পেয়েছি নদীর তীরে। এর অর্ধেকটা ভালুক খেয়েছে।’

ওবামার উদ্বিগ্ন প্রশ্ন : ‘ভালুকটা পুরো মাছটা সাবাড় করে ফেলল না কেন?’ । উৎসাহী ছাত্র পেয়ে গ্রিলস মেলে ধরেন জ্ঞানের পাঠশালা। ‘দেখুন ভালুক স্যামন মাছটার চর্বি অংশটুকু পছন্দ করেছে। ওই জায়গাটা খেয়ে নিয়েছে। খেয়েছে মগজটা আর ডিমটাও। মাংসটা রেখে দিয়েছে। ভালুকরা ঘন চর্বিযুক্ত খাবারটা চায়।’

এরপরই গ্রিলস স্যামনের মাংস কাটা শুরু করল। তবে প্রেসিডেন্টকে স্যামনের মত কাঁচা মাংস খেতে হয়নি। গ্রিলস আগুনের ওপর কিছু একটা বসিয়ে তাতে গরম করে নেয় ওই মাংস। তারপর ওবামা ও গ্রিলস দুজনে মিলে মাংসের টুকরো খান। খেয়েই ওবামা বলেন, ‘দারুণ স্বাদ। সঙ্গে ক্র্যাকার জাতীয় কিছু থাকলে মন্দ হতো না।’

শেয়ার করুন