Home / উপজেলা সংবাদ / ফরিদগঞ্জ / ফরিদগঞ্জে এক নৌকার মাঝি হতে ২০ প্রার্থীর লড়াই

ফরিদগঞ্জে এক নৌকার মাঝি হতে ২০ প্রার্থীর লড়াই

১৯.৭৫ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে ২০০৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর ফরিদগঞ্জ পৌরসভা যাত্রা শুরু করে। ৯টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে গঠিত পৌরসভার সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ভোটার সংখ্যা ৩১হাজার ৮৪ জন ।

প্রতিষ্ঠাকালে এটি খ শ্রেণির হলেও ২০১৬ সালে ২০ জুন এটিকে খ শ্রেণিকে উন্নিত করা হয়। সাবেক ১৩নং ফরিদগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের পুরো অংশ, ৯নং গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের সাবেক ৯নং ওয়ার্ড এবং ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের একটি গ্রামের কিছু অংশ নিয়ে পৌরসভাটি গঠিত হয়।

আগামি ১৪ ফেব্রুয়ারী ভালবাসা দিবসের দিনে ফরিদগঞ্জ পৌরবাসী তাদের নতুন পৌর মেয়র নির্বাচনের জন্য ভোট প্রদান করবেন। ব্যালট ভোটে নির্বাচনের লড়াইয়ে অবতীর্ণ হতে রাজনীতির মাঠের বড় দুই দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মেয়র পদের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ব্যস্ত দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য।

তবে বিএনপির চেয়ে অনেক বেশি প্রার্থীর বহর আওয়ামীলীগে। পৌর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় এবং চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের কাছে কমপক্ষে ২০জনের আবেদন জমা পড়ে। জেলা আওয়ামীলীগও ঝামেলা এড়াতে আবেদিত সকল প্রার্থীর তালিকা পাঠিয়ে দেয় কেন্দ্রে সেই অনুযায়ী এই পর্যন্ত ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে মেয়র পদে নৌকার মাঝি হতে দলীয় মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন ২০জন প্রার্থী। অর্থাৎ এক নৌকার মাঝি হতে লড়ছেন ২০ প্রার্থী।

এরা হলেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র মাহফুজুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী, সহসভাপতি লোকমান তালুকদার, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদ ভাইসচেয়ারম্যান ওয়াহিদুর রহমান রানা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম পাটওয়ারী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন মিয়াজী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন মিয়াজী, জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান মিটু, জেলা পরিষদ সদস্য ও পৌর আওয়ামীলীগের একাংশের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রিপন, পৌর আওয়ামীলীগের একাংশের ষভাপতি(ভারপ্রাপ্ত) ও কাউন্সিলর মজিবুর রহমান পাটওয়ারী, পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর মো: খলিলুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক মাহবুব মোর্শেদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগের সাবেক সদস্য ইসমাইল হোসেন পাটওয়ারী।

পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ চাঁদপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক হাজী কামরুল হাসান সাউদ, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসম্পাদক আকবর হোসেন মনির, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান শাহীন, সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক হেলাল উদ্দিন আহমেদ, পৌর যুবলীগের সভাপতি আব্দুল গাফ্ফার সজিব।

এছাড়া নারী প্রার্থীদের মধ্যে সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী সেলিনা আক্তার শেলী, উপজেলা মহিলালীগের সভাপতি অ্যাড. নাজমুন নাহার অনি, পৌর মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আজমুর বেগম।

কেন এত প্রার্থী এই প্রশ্নের জবাবে ফরিদগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র মাহফুজুল হক জানান, বিগত নির্বাচনে নৌকার বিজয়ের পর দৃশ্যমান উন্নয়ন কর্মকাণ্ড এবং করোনাকালিন সময়ে তার গৃহিত পদক্ষেপগুলো জনমনে প্রভাব ফেলেছে। তাই নৌকার মাঝি হলে বিজয় নিশ্চিত জেনেই মেয়র পদে এত প্রার্থী।

২০০৫ সালে গঠিত হওয়ার পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত মেয়র মো: মঞ্জিল হোসেন। এরপরে ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজয়ী হন বর্তমান মেয়র মাহফুজুল হক। আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীণ আওয়ামীলীগের মেয়র পদে ২০ প্রার্থীর মধ্যে কে নৌকার মাঝি হচ্ছেন, তা নিয়ে চলছে সর্বত্র চুলচেরা বিচার বিশ্লেষণ।

প্রতিবেদকঃশিমুল হাছান,১২ জানুয়ারি ২০২১