Home / সারাদেশ / নববধূ রেখে খেলা দেখতে মাঠে বর

নববধূ রেখে খেলা দেখতে মাঠে বর

সিলেটে গতকাল মঙ্গলবার (০৩ মার্চ) অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের তিন ম্যাচের দ্বিতীয় ওয়ানডে সিরিজ। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়েকে চার রানে হারায় বাংলাদেশ।

শ্বাসরুদ্ধকর জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই তিন ম্যাচের সিরিজ জিতে যায় টাইগাররা। গোটা ম্যাচটি ছিল রোমাঞ্চে ভরা। তবে খেলার মাঠে দেখা গেল এক ক্রিকেটভক্ত সদ্যবিবাহিত বরের। নববধূকে বাসায় রেখে বিয়ের পোশাকে খেলা দেখতে মাঠে চলে যান তিনি।

বরের নাম আবু হায়দার লাভলু। তার বাড়ি সিলেটের বিশ্বনাথে। বিয়েও করেছেন সেখানে। স্টেডিয়ামে বরের সাজেই চলে যান তিনি। খেলাপাগল যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী আবু হায়দার লাভলুর এমন কর্মকাণ্ডে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দীর্ঘ ১১ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকছেন আবু হায়দার লাভলু। পাঁচদিন আগে প্রেমিকাকে বিয়ে করতে বাংলাদেশে আসেন তিনি। মঙ্গলবার (০৩ মার্চ) দুপুরে সিলেট নগরের পাঠানটুলা এলাকায় সানরাইজ কমিউনিটি সেন্টারে প্রেমিকা তাসলিমা বেগমের সঙ্গে বিয়ে হয় সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের ভোগশাইল গ্রামের যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী আবু হায়দার লাভলুর।

এদিকে মঙ্গলবার দুুপুরে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলছিল বাংলাদেশ বনাম জিম্বাবুয়ের দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ। মাঠে বিয়ের সাজে খেলা দেখতে চলে যান লাভলু। সঙ্গে শ্যালক ও বন্ধুদেরও নিয়ে যান তিনি। তাকে দেখে বিস্ময়ে হতবাক মাঠভর্তি দর্শক-সমর্থক। লাভলু বিয়ের প্রাথমিক কাজ শেষ করে নববধূকে বাসায় রেখে বিয়ের পোশাকে মাঠে হাজির হন, যা ক্রিকেট ইতিহাসে বিরল।

এ বিষয়ে আবু হায়দার লাভলু বলেন, ছোটবেলা থেকে ক্রিকেটের প্রতি আমার প্রবল আগ্রহ। যখনই সুযোগ পাই মাঠে বসে ক্রিকেট খেলা দেখি। মঙ্গলবার বিয়ে শেষে পোশাক বদলানোর সময় পাইনি, তাই বরেরবেশে স্টেডিয়ামে চলে যাই।

লাভলু বলেন, আমি ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। মঙ্গলবার বিয়ে করেছি। এরপরই সরাসরি স্টেডিয়ামে চলে যাই। স্ত্রীকে বাসায় রেখে যাই। মাশরাফি, তামিম, সাকিব ও মাহমুদউল্লাহর বড় ফ্যান আমি। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ দলের কট্টর সমর্থক।

তিনি বলেন, ১১ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকি। ফ্লোরিডায় বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের টি-টোয়েন্টি ম্যাচ উপভোগ করেছি মাঠে বসে। আজকে বিয়ের দিনও বাংলাদেশের খেলা দেখার লোভ সামলাতে পারিনি। তাই এমন ঘটনা ঘটেছে। আসলে বাংলাদেশের খেলাটা মিস করতে চাইনি বলেই বরের পোশাকে মাঠে চলে গেলাম।

লাভলুর শ্যালক ফাহিম আহমেদ বলেন, বিয়ের পরই দুলাভাই বলেন চল খেলা দেখতে যাই। এমন দুলাভাই পেয়ে আমি খুব আনন্দিত। আমার দুলাভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন।

লাভলুর আত্মীয় শামসুজ্জামান সুমন বলেন, বিয়ে করতে দেশে আসে লাভলু। বিয়ের আসরে বসে বার বার আমার কাছে খেলার আপডেট জানতে চেয়েছে। পরে কবুল বলা শেষেই নববধূ রেখে সবাইকে নিয়ে খেলা দেখতে মাঠে চলে যায় লাভলু।

বার্তা কক্ষ,৪ মার্চ ২০২০

ইন্টারনেট কানেকশন নেই