Home / চাঁদপুর / চাঁদপুর শহরে ৪তলা ভবন থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

চাঁদপুর শহরে ৪তলা ভবন থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

চাঁদপুর শহরের একটি ৪তলা ভবনের কক্ষ থেকে মো.শাহাদাত মিজি নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ । সোমবার  ১৩ জানুয়ারি দিনগত রাত আড়াইটায় চাঁদপুর শহরের বিটি রোড এলাকার রাশিদা হোটেলের পশ্চিম পাশের সোহাগ ভিলা থেকে চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জয়নাল ও সর্ঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করেন।

মৃত  শাহাদাত শহরের ১৫ নং ওয়ার্ডস্থ চক্ষু হাসপাতাল সংলগ্ন আব্দুল কাদের মিজি বাড়ির মতিন মিজির ছেলে । সে দীর্ঘদিন প্রবাসে ছিলেন বলে জানা গেছে।

সোহাগ ভিলার ভাড়াটিয়া বাসিন্দা মো.ইব্রাহীম খলিল জানায়, সোহাগ আর শাহাদাত একে অপরের বন্ধু। তাদের অন্যান্য বন্ধুরাসহ অনেক সময় তারা সবাই এ
বাড়িতেই আড্ডা দিতেন। সোমবার সন্ধ্যার পূর্বে শাহাদাত ওই বাড়িতে যান। রাতে সোহাগ তার বাসায় ছিলো এবং শাহাদাতের সাথে কথাও হয়।

কোনো এক সময় শাহাদাত কোনো কিছু না বলে ওই ভবনের ৪ তলার খালি কক্ষে চলে যায়। তাকে খোঁজে না পেয়ে বন্ধুরা ওই রুমের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পায়। পরে সোহাগ ও অপর বন্ধু ওসমান গণি হেলাল দরজা ভেঙে তাকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। স্থানীয়দের ধারণা শাহাদাত স্টোক করে মারা গেছেন।

এমন ঘটনার খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ রাতেই শাহাদাতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। একই সাথে জিঙ্গাসাবাদের জন্য শাহাদাতের বন্ধু সোহাকেও পুলিশ নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সোহাগের মা নিলুফা বেগম জানায়, শাহাদাত সোহাগের বন্ধু । সে প্রায় আমাদের বাসায় আসতো। সোমবার বিকেলেও সে আমাদের বাসায় আসে। পরে সোহাগ কাজ শেষ করে শাহাদাত যে ফ্লাটে ছিলো সে ফ্লাটের দরজা নক করতে থাকে কিন্ত বিতর থেকে কোনো সাড়া না দেয়ায় বাসার অন্যান্য লোক মিলে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে দেখে সে ফ্লোরে পড়ে রয়েছে। সাথে সাথে তাদের বাসায় খবর দেয়া হয়। পরে সবাই এসে দেখে সে মৃত।

নিহত শাহাদাতের ভাই শাখওয়াত বলেন, ‘সোহাগ আমার ভাইয়ের বন্ধু ছিলো। সে প্রায় ওই বাসায় যেতো। কিন্ত ওইদিন বিকেলে আমার ভাই ওই বাসায় যাওয়ার পর সন্ধ্যায় নাকি তারা দেখেছে দরজা খোলেনি তাহলে তারা সন্ধ্যায় আমাদের না জানিয়ে রাতে কেন জানালো। আর আমার ভাই যে ফ্লাটে মারা গেছে সেই ফ্লাটের ভেতরে দরজা দিয়েও ছাদে উঠা যায়। সেই দরজাও খোলা ছিলো। তার মাথার পিছনে ফুলা রয়েছে।

চাঁদপুর মডেল থানার এস আই জয়নাল বলেন, ‘এখন তেমন কিছুই বলা যাচ্ছে না। মৃতের শরীরে অঘাতের তেমন কোনো চিহ্ন নেই। শুধু মাথায় পেছনে একটু ফুলা রয়েছে। তদন্ত শেষে বলা যাবে।’

এ বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.নাসিম উদ্দিন বলেন, ‘আমরা এমন ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ফোর্স পাঠিয়েছি। পুলিশ শাহাদাতের মরদেহ উদ্ধার করেছেন । মঙ্গলবার ১৪ জানুয়ারি সকালে তার মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। মৃত্যুর কারণ সম্পর্ক এ মুহুর্তে বলা সম্ভব নয়। বার্কিটা আইনি প্রক্রিয়া শেষে বলা যাবে।’

প্রতিবেদক: কবির হোসেন মিজি , ১৪ জানুয়ারি ২০২০