Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Home / উপজেলা সংবাদ / মতলব দক্ষিণ / চাঁদপুর জেলায় জাতীয়করণ হওয়া তিন কলেজেরই অধ্যক্ষ পদ শূন্য
Korfulennesa-women-college

চাঁদপুর জেলায় জাতীয়করণ হওয়া তিন কলেজেরই অধ্যক্ষ পদ শূন্য

চাঁদপুরে গত আগস্টে জাতীয়করণ হওয়া আটটি কলেজের তিনটিতেই অধ্যক্ষ পদ শূন্য। এরমধ্যে দুটিতে দীর্ঘদিন ধরে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে শিক্ষা ও প্রশাসনিক কার্যক্রম চলে আসছে। অপরটিতে চাকরি মেয়াদ শেষ হওয়ার প্রতিষ্ঠাকালিন অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এতে কলেজগুলোর দাপ্তরিক শিক্ষা, প্রশাসনিক ও অন্যান্য কার্যক্রমে কিছুটা স্থবিরতা বিরাজ করছিলো।

অধ্যক্ষ পদ শূন্য হওয়া তিনটি কলেজ হলো মতলব দক্ষিণ উপজেলার মতলব ডিগ্রি কলেজ, শাহরাস্তি উপজেলার করফুলেন্নেসা মহিলা ডিগ্রি কলেজ ও হাজীগঞ্জ উপজেলার হাজীগঞ্জ মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ।

কলেজগুলোর সূত্রে জানা গেছে, চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার মতলব ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবদুস সালাম ২০১৮ সালের ২৪ জানুয়ারি অবসর নেন।

এরপর কলেজটির সহকারী অধ্যাপক মো. রফিকুল ইসলাম কিছুদিন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। কিছুদিন পর তিনিও অবসরে যান।

Matlab-Degree-College.jpg

মতলব সরকারি ডিগ্রি কলেজ

গেলো বছরের ১ জুলাই থেকে কলেজটির কৃষিবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবুল কালাম আল আজাদ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে এখন দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

মতলব সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবুল কালাম আল আজাদ বলেন, একজন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের পক্ষে সবকিছু সঠিকভাবে সামাল দেওয়া কঠিন। শ্রেণিকক্ষে পাঠদান ছাড়াও তাঁকে বাড়তি দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। এতে কোনো কাজেই ভালোভাবে করা যায় না। তাঁর কলেজে দ্রুত নিয়মিত অধ্যক্ষ নিয়োগ করার দাবি জানান তিনি।

এদিকে শাহরাস্তি উপজেলার করফুলেন্নেসা মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ লায়লা আঞ্জুমান বানু ২০১৬ সালের ১২ আগস্ট অবসরে যান। এরপর থেকে এ কলেজের সহকারী অধ্যাপক উৎপলা রাণী পাল ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে মতলব ও করফুলেন্নেসা সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের কয়েকজন শিক্ষক বলেন, অধ্যক্ষ না থাকায় তাঁদের কলেজ দাপ্তরিক কার্যক্রমের স্থবিরতা বিরাজ করছে। জোড়াতালি দিয়ে চলছে সার্বিক কার্যক্রম। জরুরি ও কলেজের নীতিনির্ধারণী বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষগণ। শিক্ষক-কর্মচারীদের ওপরও তাঁদের তেমন নিয়ন্ত্রণ নেই। প্রশাসনিক ও শিক্ষার্থীদের পাঠদান তদারকি কার্যক্রমেও তাঁদের গতি নেই। এসব কলেজে দ্রুত অধ্যক্ষ নিয়োগ হওয়া জরুরি বলে মনে করেন তাঁরা।

অপরদিকে হাজীগঞ্জ উপজেলার হাজীগঞ্জ মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আলমগীর কবির পাটোয়ারী ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে অবসর নেন। পরে তাঁর চাকরির মেয়াদ দুই বছরের জন্যে বাড়ানো হয়। সে হিসেবে এটি গেলো বছরের ডিসেম্বরে মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। তবে নতুন কোনো নির্দেশনা না পাওয়ায় তিনি প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। সে হিসেবে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে পদটি শূন্য রয়েছে।

কলেজটির একজন জেষ্ঠ্য শিক্ষক নাম না প্রকাশের শর্তে চাঁদপুর টাইমসকে জানান, ‘ডিসেম্বরে বর্তমান অধ্যক্ষের মেয়াদ শেষ হয়েছে। তবে পরবর্তী অধ্যক্ষ না আসা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠাকালিন অধ্যক্ষ হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করবেন। এতে তেমন অসুবিধা হচ্ছে না।’

Hajigonj-Model-College

হাজীগঞ্জ সরকারি মডেল কলেজ

এ বিষয়ে কলেজটির অধ্যক্ষ ড. আলমগীর কবির পাটোয়ারী চাঁদপুর টাইমসকে বলেন, ‘ আমি এখনো দায়িত্বে রয়েছি। জাতীয়করণ হওয়ার পর থেকে নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের বিষয়ে আমি কোনো চিঠি পাইনি।’

শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) চাঁদপুরের হাইমচর বালক সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে শিক্ষক সংকট প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি বলেছেন, ‘সারাদেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে কিছু সমস্যা রয়েছে। তার মধ্যে প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষক সংকটও একটি সমস্যা। তাই সারাদেশেই এখন শিক্ষক নিয়োগ করা হবে।’

নতুন শিক্ষামন্ত্রী এ মন্তেব্যের পর ওইসব প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা কিছুটা আশার আলো পেয়েছেন।

প্রতিবেদক- দেলোয়ার হোসাইন
১৯ জানুয়ারি, ২০১৯

Leave a Reply