Home / চাঁদপুর / চাঁদপুরে মার্কেটগুলোতে নির্দিষ্ট সময় দেওয়া থাকলেও চলছে অনির্দিষ্ট সময় পযর্ন্ত
চাঁদপুরে মার্কেট

চাঁদপুরে মার্কেটগুলোতে নির্দিষ্ট সময় দেওয়া থাকলেও চলছে অনির্দিষ্ট সময় পযর্ন্ত

সারা দেশের সাথে চাঁদপুরেও করোনাকালে লকডাউন স্থিতিশীল করে রোজাদার ভাইবোনদের কথা বিবেচনা করে দোকানপাট ও মার্কেট বিকেল ৫ টার পরিবর্তে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া থাকলেও তা চলছে অনির্দিষ্ট সময়ে। কেউই মানছে না সে নিয়ম।

প্রতিদিনই লক্ষ্য করা গেছে চাঁদপুর শহরের বিভিন্নস্থানে প্রত্যেকটি দোকানপাট ও মার্কেটগুলো রাত ৯ টার পরেও তা খোলা রাখা হচ্ছে। কোন প্রকার স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই সেগুলো এগারোটা বারোটা পর্যন্ত চলছে নিয়মিত।

জানা যায়,২৫ এপ্রিল রোববার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম রোজাদারদের কথা বিবেচনায় রেখে রাত ৯টা পর্যন্ত মার্কেট খোলা রাখার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তারপর থেকে সারা দেশের সাথে চাঁদপুরেও সরকারি ভাবে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

কিন্তু সরেজমিনে দেখা গেছে, চাঁদপুর শহরের প্রত্যেকটি শপিংমল ও বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় এবং ফুটপাতে থাকা দোকানপাট গুলো রাত ৯ টার পরেও অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য খোলা রাখা হচ্ছে। আর এসব দোকান-পাট ও শপিংমল খোলা রাখার কারণে অনেক ক্রেতারা স্বাস্থ্য বিধি না মেনেই তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ক্রয় করতে সেখানে ভিড় বা ঘুড়ে বেড়াচ্ছেন।

৩০ এপ্রিল শুক্রবার রাত দশটার পর থেকে চাঁদপুর শহরের মীর শপিং কমপ্লেক্স, রেলওয়ে হর্কাস মার্কেট, হাকিম প্লাজা, মদিনা মার্কেট, সাউথ প্লাজা, নুর ম্যানশন, নতুন বাজার পুরান বাজার বিপনিবাগ বাসস্ট্যান্ডসহ শহরের দোকানপাট ও শপিংমল গুলো রাত ৯/ ১০টার পরেও খোলা রাখতে দেখা গেছে।

এর আগে সরকার কঠোর লকডাউনের মধ্যে ২৫ এপ্রিল থেকে প্রতিদিন সাত ঘণ্টা করে দোকানপাট ও শপিংমল খোলার কথা ঘোষনা দেন। কিন্তু রমজান মাস হওয়ায় রোজদারদের কথা মাথায় রেখে বিকেল ৫টার পরিবর্তে রাত ৯টা পর্যন্ত সময় বাড়িয়েছে সরকার। কিন্তু সরকারি নির্দেশনার সাথে চাঁদপুরের বিভিন্ন শপিং মল ও দোকানপাট গুলোর কোনও মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন একটু নজরদারি দিলেই সকল ব্যবসায়ীরা সরকারি নির্দেশনার প্রতি গুরত্ব দিবেন বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

প্রতিবেদক:কবির হোসেন মিজি,৩ মে ২০২১