Home / চাঁদপুর / চাঁদপুরে কমছে না কিশোর গ্যাংয়ের দাপট

চাঁদপুরে কমছে না কিশোর গ্যাংয়ের দাপট

চাঁদপুরে কিশোর গ্যাংয়ে উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে মানুষ। অভিভাবকদের দায়িত্বহীনতা, অল্প বয়সে মাদকের সাথে জড়ানো, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক,টিকটকসহ নানা মোবাইলে অনলাইন ভিত্তিক এ্যাপস ও গেমস ব্যবহার, নারীসহ নানা কারণে এই গ্যাংয়ের সৃষ্টি বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী অনেক অভিভাবকরা।

তবে চাঁদপুর শহরে কিশোর গ্যাং এর নানা চক্র ধরার জন্য দিন-রাত পাড়া মহল্লাসহ বিভিন্নস্থানে অভিযান করেছেন চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মোঃ নাসিম উদ্দিন। অবশেষে প্রায় কয়েকশ এই চক্রের সদস্য আটকও করেন তিনি।

চাঁদপুর শহরের মানুষ ওসি মোঃ নাসিম উদ্দিন কে বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় অভিযানে গেলে কিশোর গ্যাং এর উৎপাত বন্ধ করায় ধন্যবাদ জানান। কিছু দিন বন্ধ থাকার পর আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছে এই চক্রের সদস্যরা।

১৫ জানুয়ারি শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মাহি ইসলাম সিমান্ত (১৫) নামের এক কিশোর কে ছুরিকাঘাত ও বেধর মারধর করে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা।

আহত মাহি ইসলাম শহরের দক্ষিন গুনরাজদী তালুকদার বাড়ির ভাড়াটিয়া শহিদুল ইসলামের ছেলে। সে চাঁদপুর আল আমিন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্র।

আহত মাহি ও তার পিতা শহিদুল ইসলাম জানায়, মাহি গুনরাজদী মন্টু পাটওয়ারীর বাড়ির সামনের মাঠে খেলতে যায়। খেলার সময় আরিফ নামের এক কিশোরের সাথে মাহির বাকবিতন্ডা হলে সে বাসায় চলে আসে।

পরে আরিফ ঘর থেকে কথা আছে বলে মাহিকে রওশন রাইস মেইলের মাঠে নিয়ে যায়। এসময় খলিফা বাড়ির মানিক খলিফা, আরিফ, রহমানসহ প্রায় ৪/৫ জন মাহিকে লোহার রড দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারধর শুরু করে। পরে রহমানের পকেটে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে পিঠে ঘাই দেয়।

এসময় মাহির ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে আরিফ বাহিনীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

স্টাফ করেসপন্ডেট,১৫ জানুয়ারি ২০২১