Home / চাঁদপুর / ঘন কুয়াশায় চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ
ফেরি চলাচল বন্ধ
ঘন কুয়াশার কবলে চাঁদপুর হরিণা ফেরিঘাটে চলাচল ব্যাহত

ঘন কুয়াশায় চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ

ঘন কুয়াশার কারণে চাঁদপুর-শরীয়তপুর রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। ১৪ জানুয়ারি মঙ্গলবার রাত ১১টা থেকে এই নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে দুই ঘাটে যানবাহন আটকা পড়েছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসি চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌ-রুটের হরিণা ফেরিঘাটের ম্যানেজার ফয়সাল আহমেদ বলেন, “মঙ্গলবার রাত ১১টা থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে থাকে। এ কারণে এই রুটে চলাচলকারী পাঁচটি ফেরি বন্ধ করে দেওয়া হয়।”

দীর্ঘ সময় ফেরি বন্ধ থাকায় ঘাটের দুই পাড়ে অন্তত ৭ শতাধিক যানবাহন আটকা পড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “চাঁদপুরের অংশে ফেরি পাড় হওয়ার জন্য অপেক্ষারত যানবাহনের সাড়ি প্রায় তিন কিলোমিটার ছাড়িয়েছে।“

কুয়াশা কেটে গেলে আবারও ফেরি চলাচল শুরু হবে বলে ঘাটের এ কর্মকর্তা জানান। এদিকে ফেরি বন্ধ থাকায় এ রুট দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী ও চালকেরা দর্ভোগে পড়েছেন।

চট্টগ্রাম থেকে আসা গাড়ি চালক মো. মাসুদ রানা বলেন, “মঙ্গলবার রাত ১১টায় হরিণা ফেরিঘাটে আসি। কুয়াশার কারণে ফেরি বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে আমাদের।”

একই দুর্ভোগের কথা জানালেন আলামিন নামের আকে গাড়ি চালক।’ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কুয়াশা কমার পর সকাল সাড়ে ১০টা থেকে আবার পারাপার শুরু হয়।

চাঁদপুর-শরীয়তপুর নৌ-রুটে মালবাহী ট্রাক, তেলবাহী লরিসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে। পাশাপাশি চট্টগ্রাম থেকে খুলনাগামী যাত্রীবাহী বাসও এ রুটে চলাচল করে।

এদিকে পদ্মায় ঘন কুয়াশার কারণে প্রায় সাড়ে চার ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ফেরি পারাপার শুরু হয়েছে।

বিআইডব্লিটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক মাহবুব হোসেন বলেন, কুয়াশায় দৃষ্টিসীমা কমে এলে ঝুঁকি এড়াতে বুধবার সকাল ৬টায় ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

কুয়াশা কমার পর সকাল ১০টা ২০ মিনিটে আবার পারাপার শুরু হয় জানিয়ে তিনি বলেন, “এখন ১৬টি ফেরি দিয়ে পারাপার হচ্ছে। ঘাটের পরিস্থিতি দ্রুতই স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে আমরা আশা করছি।”

বার্তা কক্ষ, ১৫ জানুযারি ২০২০