Home / চাঁদপুর / কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবিত চাঁদপুরে বিক্ষোভ সমাবেশ

কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবিত চাঁদপুরে বিক্ষোভ সমাবেশ

রাষ্ট্রীয়ভাবে কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার দাবিত চাঁদপুরে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে। ৫ মার্চ শুক্রবার বাদ জুম্মা শহরের শপথ চত্ত্বর বাইতু্ল আমিন জামে মসজিদের সামনে এই সমাবেশ ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

আন্তর্জাতিক মজলিসে তাহাফ্ফুজে খতমে নবুওয়ত বাংলাদেশ চাঁদপুর জেলা শাখার আয়োজনে এই সমাবেশ ও মিছিলে যেনো জনস্রোতে রুপ নেয়। চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন এলাকার মসজিদ ও মাদ্রাসা কয়েক হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমান জুম্মার নামাজ শেষে এই কর্মসূচীতে সমবেত হয়। তারা নারায়ে তাগবীর, আল্লাহু আকবার, নবীর পরে নবী নাই, সংসদে আইন চাই, কাদিয়ানীররা কাফেরসহ বিভিন্ন শ্লোগানে-শ্লোগানে ব্যস্ততম শহরের প্রাণকেন্দ্রটি মুখরিত করে তোলে।

একই সাথে দিল্লিতে মুসলিম হত্যার ঘটনায় মোদি বিরোধী শ্লোগান তোলেন। বায়তুল আমিন মসজিদ থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি মিশন রোডের মাথায় গিয়ে দোয়া মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হয়।

বক্তারা বলেন, আমাদের প্রিয় নবী মোহাম্মদ মহান আল্লাহ প্রেরিত সর্ব শেষ নবী। অথচ ভন্ড কাদিয়ানীরা এক ভন্ডকে নবী দাবী করছে। ১৯৯৭ সালে হাইকোট থেকে কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণার পক্ষে রায় এসেছে। তাছাড়া পৃথিবীর ৪৭টি দেশে তাদের অমুসলিম ঘোষণা করেছে। অথচ অমুসলমানদের এই দেশে তাদেরকে অমুসলিম ঘোষণা করা হচ্ছে না। আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীর মাধ্যমে সংসদের আইন করে এই ভন্ডদের অমুসলিম ঘোষণার দাবী করছি। অন্যথায় কাদিয়ানীদের পৃষ্টপোষক ইনু, মেননদের এ দেশের মুসলিম উম্মাহ ছাড়বেনা।

বক্তারা আরো বলেন,আহম্মদ সফি সাহেবের ঘোষনা অনুযায়ী মুসলিমদের হত্যাকারী নরেন্দ্র মোদীকে মুজিববর্ষের মতো সম্মানজনক অনুষ্ঠানে আমরা আসতে দেবো না। তার সফর বাতিল করতে হবে।

সংগঠনের চাঁদপুর জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা জাফর আহমেদের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি মুফতি সিরাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইদ্রিস, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম আনোয়ারুল করীম, বোরহান উদ্দিন সিদ্দিকী, ওমর ফারুক বাদশা, মাওলানা মাসুম বিল্লাহ।

সংগঠনের নেতা ফারুক মোহাম্মদ নোয়াইবের পরিচালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন, তোফায়েল আহমেদ,এবিএম মোস্তফা কামাল,মুফতি মাহবুবুর রহমান, মুফতি শাহাদাত হোসেন, মাওলানা হাবিবুর রহমান,হাফেজ আবুল হাসানাত,আবুল কালাম আজাদ,মাওলানা মুনীর হোসাইন,আশেক এলাহী, আনোয়ার আল নোমান।

আশিক বিন রহিম,৬ মার্চ ২০২০