দিনব্যাপি আয়োজনে চাঁদপুর সরকারি কলেজে মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

দিনব্যাপি আয়োজনে চাঁদপুর সরকারি কলেজের উদ্যোগ ২১ ফেব্রুয়ারি মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন হয়েছে।

সকাল সাড়ে সাতটায় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকবৃন্দ অধ্যক্ষ উপাধ্যক্ষের নেতৃত্বে শহরে প্রভাত ফেরি করেন এবং সকাল সাড়ে আটটায় কলেজ শহিদ মিনারে সকল বিভাগের পক্ষ থেকে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মোঃ আজিম উদ্দিন এর সভাপতিত্বে কলেজ অডিটরিয়ামে আলোচনা সভা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এ এস এম দেলওয়ার হোসেন এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন চাঁদপুর সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশ।

বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ সাইদুজ্জামানের উপস্থাপনায় সকাল সাড়ে নয়টায় পবিত্র কোরআন ও গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক মেহেদী আরিফ, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ গিয়াস উদ্দিন, সমাজ কল্যাণ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ আলাউদ্দিন, শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক এবং ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান, অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. জসিম উদ্দিন আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

সকল বক্তাই দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন ভাষা আন্দোলনে আত্মদানকারী সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারসহ নাম না জানা সকল শহিদদের। গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হয় হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। যিনি রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবীতে কারাগারে অনশন শুরু করেন। গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হয়, ভাষাবীর এম এ ওয়াদুদকে। উপাধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশ তাঁর বক্তব্যে মাতৃভাষার তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং সমাজের সকল স্তরে মাতৃভাষা চর্চা ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে সমাজ থেকে সকল ধরণের বৈষম্য দূরীকরণের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। জার্মান, দক্ষিণ কোরিয়া, চীন, জাপান, এমনকি ইউরোপ আজকের এই অবস্থানে আসার পিছনে মাতৃভাষা চর্চার অবদান রয়েছে বলে তিনি আলোকপাত করেন।

অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এ এস এম দেলওয়ার হোসেন তার বক্তব্যে ভাষা শহিদদের গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

তিনি বলেন, বাংলা ভাষা হাজার বছরের পুরোনো। এই মাতৃভাষার জন্য জাতির পিতা বঙ্গব›ধু শেখ মুজিবুর রহমান জেল খেটেছেন। তাঁর কারাগারের রোজনামচা বইটি শিক্ষার্থীদের পড়ার অনুপ্রেরণা দেন।

তিনি আরও বলেন, ভাষা আন্দোলনের সঠিক ইতিহাস এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সকলের জানা প্রয়োজন। কারন ইতিহাস হচ্ছে ভবিষ্যতের সরণি।

আলোচনা সভার পর ভাষা আন্দোলনের উপর রচনা, বিতর্ক এবং দেশাত্মবোধক গানের প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পর হিসাববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ভিভিয়ান ঘোষের নির্দেশনায় সিসিডিএফ এর ব্যবস্থাপনায় ভাষাবীর এম এ ওয়াদুদ স্মারক প্ল্যানচেট বিতর্ক-২০২০ আয়োজন করা হয়।

এর আগে অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ এর নেতৃত্বে শিক্ষকবৃন্দ, বিএনসিসি, রোভার স্কাউটস, রেড ক্রিসেন্ট রাত ১২ টা ১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে দিবসটি শুরু হয়। সকাল সাড়ে সাতটায় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকবৃন্দ অধ্যক্ষ উপাধ্যক্ষের নেতৃত্বে শহরে প্রভাত ফেরি করেন এবং সকাল সাড়ে আটটায় কলেজ শহিদ মিনারে সকল বিভাগের পক্ষ থেকে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

বাদ জুমা চাঁদপুর সরকারি কলেজ কেন্দ্রীয় মসজিদ ও হোস্টেল মসজিদসমূহে ভাষা শহিদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দিবসটি শেষ হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০

চাঁদপুর