Home / উপজেলা সংবাদ / কচুয়া / চাঁদপুরে ডাকাতিস্থল ও আহতদের পরিদর্শনে জেলা প্রশাসন

চাঁদপুরে ডাকাতিস্থল ও আহতদের পরিদর্শনে জেলা প্রশাসন

চাঁদপুর সদর ৯নং বালিয়া ইউনিয়নে ডাকাতির ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও আহতেদের পাশে দাঁড়িয়েছেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসন।

বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) চাঁদপুর জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খানের নির্দেশে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামানের নেতৃত্বে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পুলিশ ফোর্সসহ আহতদের দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান।

আহত তানভির হোসেন ও তার স্ত্রী সুচিকিৎসারর জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ দেন। এছাড়াও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আতংকগ্রস্থ এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে তাদের অভয় দিয়ে সচেতন থাকার পরামর্শ দেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়,মঙ্গলবার রাত ৩টার সময় ৩নং ওয়ার্ডের মধ্য বালিয়া গ্রামের জহিরের বাড়ির লোকজনের হাত-পা-মুখ বেঁধে বসতঘরে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এসময় ডাকাতের হামলায় ৩ নারীসহ গৃহকর্তা গুরুতর আহত হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় জহির গাজীর ভাড়াটিয়া ত্রিপুরা সমাজ উন্নয়ন সংস্থান কম্পিউটার সেন্টারের তত্ত্বাবধায়ক তানভীর হোসেন (৩৩), তার স্ত্রী তাহমিনা আক্তার (৩০) ও বাড়ির মালিকের বোন জ্যোৎস্না বেগমকে ঘটনার রাতে ৪টার সময় চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত কালো টর্চ লাইট জব্দ করেছে।

আহত তানভীর হোসেন বলেন, ‘৬/৫ জনের ডাকাত দল প্রথমে বাড়ির জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে এবং ঘরের দরজা ভেঙ্গে বাড়ির মালিকের বোন ও ভাগি্নকে মুখ চাপা দিয়ে হাত-পা বেঁধে ফেলে। এরপর আলমিরা তছনছ করে লুটপাট শুরু করে। পরে ভাড়াটিয়া ঘরের দরজা আঘাত করলে আমরা ঘুম থেকে উঠে পড়ি। ডাকাতরা তখন আমার ও আমার স্ত্রীর উপর কাঠের টুকরা ও টর্চলাইট দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত শুরু করে। তখন সাহস করে চিৎকার করলে এক পর্যায়ে বাড়ির আশপাশের লোকজন ছুটে আসতেই ডাকাতরা পালিয়ে যায়। ডাকাতদের কাউকে চিনতে পারেনি বলে জানান ওই শিক্ষক। পরে ঘটনাটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামকে জানালে চেয়ারম্যান থানা পুলিশকে অবহিত করেন।’

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ ইব্রাহীম খলিল বলেন, ‘খবর পেয়ে সদর সার্কেল স্যারসহ আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ঘরে ল্যাপটপ, মোবাইলসহ অনেক কিছু থাকা সত্ত্বেও তারা কিছুই নেয়নি। শুধু শিক্ষক পরিবারের উপর হামলা করে চলে গেছে। তাই ঘটনাটি রহস্যজনক। আমরা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছি।’

প্রতিবেদক:আশিক বিন রহিম
২৬ সেপেটম্বর,২০১৮

Leave a Reply