Home / উপজেলা সংবাদ / কচুয়া / কচুয়ায় আ’লীগ নেত্রীকে মারধর করে মেয়ে অপহরণের অভিযোগ

কচুয়ায় আ’লীগ নেত্রীকে মারধর করে মেয়ে অপহরণের অভিযোগ

কচুয়া উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদিকা মোসা. কাজল রেখা করে স্কুলপড়ুয়া মেয়ে অপহরণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। গত রোববার ৬ জনকে অভিযুক্ত ও আরো ক’জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কাজল রেখা বাদী হয়ে কচুয়া থানায় এ মামলাটি (নং- ০১, ০১/১১/২০১৫ইং) দায়ের করেছেন।

মামলায় অভিযুক্তরা হচ্ছেন বেরকোটা গ্রামের জিল্লুর রহমান জুয়েল, শাহাজাহান, মনির হোসেন, সোহরাব হোসেন চৌধুরী রুবেল, সোহেল ও কাকন। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলা ও স্থানীয় এলাকা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বেরকোটা গ্রামের অধিবাসী পাথৈর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আলাউদ্দিন লিটনের স্ত্রী মহিলা নেত্রী কাজল রেখা শনিবার সকালে তার মেয়ে সাচার উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী মারিয়া সুলতানা আনিকা (১৪) কে নিয়ে স্কুলের প্রাইভেট শিক্ষকের কাছে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে পাথৈর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পূর্বে ওঁৎপেতে থাকা জিল্লুর রহমান রুবেলসহ ৫/৭ জন যুবক তাকে মারধর করে পুকুরে ফেলে দিয়ে স্কুল ছাত্রী মারিয়া সুলতানা আনিকাকে সিএনজি যোগে তুলে নিয়ে যায়।

এসময় অপহরণকারীরা ইলিয়টগঞ্জ এলাকায় পৌছলে স্কুল ছাত্রীর ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন সিএনজি আটক করলে অপহরণ কারীরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সাচার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) মোস্তফা চৌধুরী তাকে উদ্ধার করে।

এদিকে স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করতে ইলেটগঞ্জ এলাকায় পৌছলে এ সুযোগে জিল্লুর রহমান জুয়েলের নির্দেশে বেরকোটা গ্রামে কাজল রেখার বাড়ী ঘরে হামলা ও ভাংচুর করা হয়। এতে আসবাবপত্র, স্বর্নালংকার ও নগদ টাকাসহ প্রায় ২ লক্ষ টাক নিয়ে যায় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।

এছাড়া হামলাকারীরা বর্তমানে তাদের বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে বলেও বাদী পরিবার দাবি করেছেন।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা সাচার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) মোস্তফা চৌধুরী চাঁদপুর টাইমসকে জানান, ঘটনার পর ভিকটিমকে উদ্ধার করে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এবং মামলার আসামিদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জিসান আহমেদ নান্নু

আপডেট ৮:৩৭ পিএম ০২ নভেম্বব, ২০১৫ সোমবার

ডিএইচ