Home / জাতীয় / রাজনীতি / ‘একরাম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতারাও জড়িত’

‘একরাম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতারাও জড়িত’

ফেনী করেসপন্ডেন্ট:

ফেনীর ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি একরামুল হক একরাম হত্যাকাণ্ডে আওয়ামী লীগ নেতারাও জড়িত। এর সঙ্গে যারাই জড়িত তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার বিকেলে দেশব্যাপী বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতাল-অবরোধ আর নাশকতার প্রতিবাদে ফেনীতে ১৪ দলের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘একরাম হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতারাও জড়িত। একজন জনপ্রিয় তরুণ নেতাকে এভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যার সঙ্গে জড়িত চার্জশিটভূক্ত আসামিদের বিচার করা হবে। তাদের কাউকেই ছাড় দেয়া হবেনা।’

বিএনপির উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সহিংসতা চলতে থাকলে সমঝোতার পথ বন্ধ হয়ে যাবে। তারা আজ মধ্যবর্তী নির্বাচন চায়। নির্বাচন কী মামার বাড়ির আবদার। এদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। শেখ হাসিনার ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশ বিশ্বকাপ জয় করবে।’

এ সময় তিনি পেট্রোলবোমার ভয়কে জয় করে অশুভ শক্তিকে পরাজিত করার আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন বলেন, ‘বেগম জিয়া জঙ্গি নেত্রী। তাদের সঙ্গে আপোষ নেই। আমেরিকা যেমন লাদেনের সঙ্গে বসে নাই, আওয়ামী লীগও খালেদা জিয়ার সঙ্গে সংলাপে বসবেনা। খালেদা জিয়ার বিচার হবে। তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে।’

ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান বিকমের সভাপতিত্বে জনসভায় বক্তব্য দেন- পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য জাহানারা বেগম সুরমা, জেলা পরিষদের প্রশাসক আজিজ আহম্মদ চৌধুরী, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হাজী আলা উদ্দিন, আমিনুল ইসলাম আমিন, সুজিত রায় নন্দী, কামাল মজুমদার, জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, অ্যাডভোকেট আবু হানিফ প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২০ মে সকাল ১১ টায় ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি একরামুল হক একরামকে ফেনী শহরের একাডেমি এলাকার বিলাসী সিনামা হলের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে দিনেদুপুরে গুলি ও আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করে।

ইন্টারনেট কানেকশন নেই