Home / লাইফস্টাইল / আপনি ভাল মানুষ তাই কাছের মানুষ থেকে কষ্ট পাচ্ছেন

আপনি ভাল মানুষ তাই কাছের মানুষ থেকে কষ্ট পাচ্ছেন

লাইফস্টাইল প্রতিবেদক:

আপনি ভাল মানুষ তাই কাছের মানুষ থেকে কষ্ট পাচ্ছেন, এটাই স্বাভাবিক। আপনি ভাল তাই কেউ কষ্ট দিয়ে কষ্টটা দ্রুত অনুভব হয়। এমন অবস্থা থেকে পরিত্রানের উপায় খুজতে আমাদের এই প্রতিবেদন-
আজকালকার সমাজে যে ভালো মানুষের বিশেষ মূল্য নেই, এ কথা মোটামুটি সর্বজনবিদিত। যে কোন ক্ষেত্রেই পিছিয়ে পড়তে হয় কেবল যেন ভালো মানুষ হবার অপরাধে। অন্যের কাছে ঠকতে হয় বারবার, ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে ভুগতে হয় অশান্তিতে, ব্যর্থতাকে বরণ করে নিয়ে ধুঁকতে হয় হতাশায়। আপনার অবস্থাও কি ঠিক এমন? একজন সাধারণ ভালো মনের মানুষ বলেই কি জীবনের নানান ক্ষেত্রে কষ্ট পেতে হচ্ছে আপনাকে? তাহলে এই ফিচারটি আপনার জন্যই। না, ভালো মানুষ হওয়া ছাড়তে হবে না। কিন্তু হ্যাঁ, জেনে নিন কীভাবে নিজেকে রক্ষা করে চলবেন।
১) নিজের সাথে স্বচ্ছ থাকাটা সবচাইতে বেশি জরুরী
“কেউ খারাপ করলে তুমিও খারাপ করো” কিংবা “এত ভালো মানুষ হয়ে কী করবে?” – এই ধরণের পরামর্শ নিশ্চয়ই অনেক শুনেছেন জীবনে? কেউ আপনার সাথে খারাপ করলো বলেই আপনাকেও তার মত হয়ে যেতে হবে, জীবনটা মোটেও এমন কিছু নয়। আসল বিষয়টি হচ্ছে, নিজের সাথে সৎ থাকুন। নিজে যা করবেন, বিবেকের সামনে পরিষ্কার থেকে করবেন। এমন কোন কিছুই করবেন না যা করার ফলে নিজের সামনে ছোট হয়ে যেতে হয়। খুব কাছের কারো জন্য হলেও অন্যায় কিছু করবেন না কিংবা নিজের ইচ্ছা বিরুদ্ধে কারো জন্য কিছু করবেন না। দেখবেন, জীবনে ঝামেলা ও কষ্ট অনেকটাই কমে গিয়েছে।
২) যাচাই করতে শিখে নিন
হ্যাঁ, আপনি হয়তো কাউকে অজথা মিথ্যা বলেন না। কিন্তু এ কথা ভুলে গেলে চলবে না যে এই পৃথিবীর মানুষ মিথ্যা বলে, নিজের স্বার্থে অন্যকে ব্যবহার করে এবং অন্যকে ঠকায়। মানুষকে বিশ্বাস করা খুব ভালো গুণ। কিন্তু কাউকে পুরোপুরি বিশ্বাস করার আগে একটু যাচাই অবশ্যই করে নেবেন। তাতে অন্তত নিজেকে খানিকটা হলেও নিরাপদ রাখতে পারবেন। তবে হ্যাঁ, বহুরুপীদের চেনা আসলেই দায়।
৩) কারো জন্য নিজস্বতা ত্যাগ করবেন না
হ্যাঁ, আপনি ভালো মানুষ। কিন্তু কারো কোথায় প্ররোচিত হয়ে কিছু করবেন না। সেটাই করুন, যা করতে আপনার মন সায় দেয় কিংবা যেটা আপনার ব্যক্তিত্বের সাথে মানানসই। কারো জন্য খারাপ লাগছে, করুণা হচ্ছে কিংবা কেউ খুব কাছের মানুষ হলেই তার জন্য নিজের একান্ত বৈশিষ্ট্যগুলো ত্যাগ করবেন না।
৪) দুর্বলতাকেই করে তুলুন হাতিয়ার
আপনি একজন দয়ালু মানুষ, সত্যবাদী মানুষ, আবেগী মানুষ। আর এটাই কি আপনার দুর্বলতা? এই ব্যাপারটিকে পুঁজি করেই কি সকলে আপনাকে আঘাত করে? এই ব্যাপারগুলোকেই রূপান্তরিত করে নিন শক্তিকে। মিথ্যার মোকাবেলা করুন সত্য দিয়ে, নির্মমতা কিংবা প্রতারণার জবাব দিন দয়া কিংবা করুণা দিয়ে। নিজেকে কখনো ছোট হতে দেবেন না বা ছোট মনে করবেন না। জেনে রাখুন, আজকালকার পৃথিবীতে এমন নরম মনের মানুষ হতে পারাটা বিশাল একটি মহৎ গুণ। আর এটাই আপনার শক্তি।
৫) জেনে রাখুন কখন সরে আসতে হবে
বুঝতে পারেন না কখন কারো সাথে সম্পর্কটা ভেঙে ফেলা জরুরী? এক্ষেত্রে ৩ টি ধাপের একটি পরিকল্পনা করতে পারেন। প্রথমে যখন কেউ আপনার সাথে অন্যায় করবে, বিষয়টি ছোটখাট হলে ক্ষমা করে দিন। কেননা অনেক সময়ই আমরা পরিস্থিতির শিকার হয়ে থাকি বা অনিচ্ছায় ভুল হয়ে যায়। দ্বিতীয়বারও যদি একই মানুষের কাছ থেকে আঘাতপ্রাপ্ত হন, তাহলে অপেক্ষা করুন। তিনি যদি ক্ষমা চান, তাহলে ক্ষমা করে দিন। ক্ষমা না চাইলে নিজেকে সরিয়ে নিন। তিনি ক্ষমা চাওয়ার পরও যদি একই মানুষ আপনাকে আবারও আঘাত করেন, তাহলে আর কখনোই তাঁকে ক্ষমা করবেন না। নিজেকে যত দ্রুত সম্ভব সরিয়ে নিন।
৬) কিছু ছোট্ট নিয়ম
কে কী করলো সেটা ধরে বসে থাকার চাইতে নিজে মেনে চলুন কিছু নিয়ম। এগুলো আপনাকে ভালো রাখবে, স্বস্তিতে রাখবে। যেমন-
-সকলের সাথে ভালো ব্যবহার করুন। যাকে একান্ত অপছন্দ করেন, তার সাথেও
-শেয়ার করতে শিখুন
-সুবিচার করুন জীবনের সবক্ষেত্রে
-অন্যায় করে ফেললে ক্ষমা চাইতে দ্বিধা করবেন না
-কাউকে ইচ্ছাকৃতভাবে আঘাত করবেন না
-নিজের ঝামেলা নিজেই শুধারতে শিখুন
একটাই জীবন। তাই ভালো থাকুন, ভালো বাসুন। নিজেকে ও প্রিয়জনদের ভালো রাখুন।