Home / জাতীয় / আজ ২ কোটি ১০ লাখ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল
ভিটামিন এ ক্যাপসুল

আজ ২ কোটি ১০ লাখ শিশুকে খাওয়ানো হবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল

আজ ১১ জানুয়ারি শনিবার সারা দেশে একযোগে প্রায় ২ কোটি ১০ লাখ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তবে বিশ্ব ইজতেমার কারণে গাজীপুর জেলার সব উপজেলা ও সিটি করপোরেশন এলাকায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন আগামী ২৫ জানুয়ারি উদযাপন করা হবে।

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মিলনায়তনে জাতীয় ভিটামিন এ ক্যাম্পেইন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এসব তথ্য জানান। তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশে বলেছেন, তাঁরা যেন ভরা পেটে শিশুদের যথাসময়ে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুকে নীল রঙের এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুকে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে এ কর্মসূচি পালন করা হবে। এবার ৬ মাস থেকে ৫ বছর বয়সী প্রায় ২ কোটি ১০ লাখ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, ছাত্র-শিক্ষক ও সাংবাদিকসহ সবার সার্বিক সহযোগিতায় দেশব্যাপী ১ লাখ ২০ হাজার স্থায়ী কেন্দ্রসহ অতিরিক্ত আরও ২০ হাজার অস্থায়ী ও ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রের মাধ্যমে এ কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রগুলোর উদ্যোগে বিভিন্ন রেলস্টেশন, বাসস্টেশন, লঞ্চঘাট, ফেরিঘাট, বঙ্গবন্ধু ব্রিজ, দাউদকান্দি ও মেঘনা ব্রিজ ইত্যাদি স্থানে শিশুদের ভিটামিন এ খাওয়ানো হবে।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে বলা হয়েছে যে ভিটামিন খাওয়ানো হচ্ছে তা সম্পূর্ণ নিরাপদ। কোনো প্রকার গুজবে কান না দিয়ে ছয় মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে অভিভাবকদের আহ্বান জানান হচ্ছে। ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুরা খাবে নীল ক্যাপসুল আর ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সীরা খাবে লাল রঙের ক্যাপসুল।

শিশুর সুস্থভাবে বেঁচে থাকা, স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও দৃষ্টি শক্তির জন্য ভিটামিন ‘এ’ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুপুষ্টি উপাদান। এটি বিভিন্ন রোগের বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করে থাকে।

আরো পড়ুন- চাঁদপুরে ভিটামিন এ প্লাস খাবে সোয়া ১ লাখ শিশু

বার্তা কক্ষ, ১১ জানুয়ারি ২০২০