Home / উপজেলা সংবাদ / হাজীগঞ্জ / হাজীগঞ্জে খেজুর গাছ কাটায় ব্যস্ত গাছিরা : লিটার ১শ’ টাকা

হাজীগঞ্জে খেজুর গাছ কাটায় ব্যস্ত গাছিরা : লিটার ১শ’ টাকা

প্রকৃতিতে এখন শীতের দাপটে। তাই কদর খেজুরের রসের। মিষ্টি দুপুর পেরিয়ে বিকেল গড়ালেই গাছে গাছে শুরু হয় গাছিদের কর্মব্যস্ততা।

গাছের ওপরের ঠিক বুকের দিকটার নির্দিষ্ট স্থানে কাটা অংশ পরিষ্কার করে আবার সামান্য কেটে বিকেলেই বসানো হয় রসের পাত্র। বিকেল গড়িয়ে রাত ৯টা ১০টা হলে ওই পাত্র ভরে যায় রসে।

রস নিয়ে সে পাত্র খালি করে আবার বসানো হয়। মধ্যরাতে ও সকালে আবার চলে রস সংগ্রহ। এভাবেই এখন খেজুরের রস সংগ্রহে ব্যস্ত দিন-রাত যাচ্ছে হাজীগঞ্জ উপজেলা গাছিদের।

এখানকার সব ব্যস্ততা যেন এখন শুধু তাদেরই। বরাবরের মতো এবারও শীত মৌসুমের পুরোটা সময় এভাবেই ব্যস্ত থাকতে হবে গাছিদের।

এ উপজেলার রাজারগাও, কালচোঁ, হাটিলা, গন্ধর্ব্যপুর ও বড়কূল ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার জনপদ ঘুরে দেখা যায়, খেজুরের গাছে গাছে এখন রস নেয়ার জন্য কলস, মাটির হাড়ি কিংবা প্লাস্টিকের ডোগ বসানো।

কোথাও কোথাও রস সংগ্রহেও দেখা যায় গাছিদের একাধিক ব্যস্ততা।

এমনই পড়ন্ত দুপুরে হাজীগঞ্জ রামগঞ্জ সড়কের পাশে জয়শরা গ্রামে খেজুর রস সংগ্রহে মগ্ন গাছি সোলেমান চাঁদপুর টাইমসকে জানান, ‘এবারের মৌসুমে ২০টি খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহ করতেছি। এ গাছগুলো থেকে প্রতিদিন প্রায় ৩০ লিটার রস আসে। শীত যখন আরও বাড়বে তখন টার্গেট হবে দৈনিক ৫০’শ লিটার রস সংগ্রহ। প্রতি লিটার রস খুচরায় বিক্রি হয় ৯০ থেকে ১শ’ টাকা। আর পাইকারি বিক্রি হয় ৭০ থেকে ৭৫ টাকায়।

তিনি আরো জানান, গত মৌসুমে রস বিক্রি করে প্রায় ২০ হাজার টাকা আয় করেছেন। এবার আরো বেশি হতে পাড়ে যদি শীতের প্রকট বাড়ে ।

পশ্চিম দেশগাঁও ব্রিজ সংলগ্ন গাছি আলতাফ মিয়ার চাঁদপুর টাইমসকে জানান, প্রায় ৪০টি গাছ কেটেছি যা থেকে দৈনিক ৩৫ থেকে ৪০ লিটার রস পাচ্ছি। শীতের প্রকট বাড়ার সাথে সাথে রসের পরিমাণ আরো বৃদ্ধি পাবে। চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত রস সংগ্রহ চলবে বলে জানান গাছিরা।

এ আবহাওয়ায় তাদের রস দিয়ে গুড় তৈরি করা যায় না।আর তেমন ভাবে এখানকার কোনো বড় ব্যবসায়ীরা আসেন না রস সংগ্রহের জন্য। তাছাড়া আমাদের যে রস সংগ্রহ হয় তা’দূর দূরান্ত থেকে গ্রাহকরা অগ্রিম টাকা দিয়ে নিয়ে যায়।

গাছিরা আরো জানায়, রস বিক্রিতে আমাদের কোনো অসুবিধা হয় না। বড় সমস্যা হচ্ছে এখানকার কিছু স্থানীয় চোর রস নিয়ে যায়।সে সাথে হাড়িটাও ভেঙ্গে ফেলে দেয়। তবে দিন দিন খেজুর গাছের সংখ্যা কমে যাওয়ায় পূর্বের মত রস সংগ্রহ হচ্ছেনা ।

এলাকার গাছিদের সঙ্গে কথা বলে যে সংখ্যাটা জানা যায় তা হল, পুরো উপজেলার প্রায় এক হাজার গাছ থেকে খেজুরের রস সংগ্রহ করা হচ্ছে। এছাড়া জেলার অন্যান্য উপজেলায়ও সমান তালে খেজুর রস সংগ্রহে ব্যস্ততা দেখা যায়।

প্রতিবেদক-জহিরুল ইসলাম জয়, হাজিগঞ্জstrong>
।। আপডটে, বাংলাদশে সময় ০৮: ০৯ পিএম, ২ জানুয়ারি ২০১৭ সোমবার
এজি/এইউ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বছর পূর্তিতে যা বললেন হাজীগঞ্জ পৌর মেয়র

চাঁদপুরের ...