Home / উপজেলা সংবাদ / মতলব দক্ষিণ / ব্যক্তিস্বার্থে সাব-রেজিস্ট্রি অফিস স্থানান্তরের চেষ্টা
Motlob Dokkhin
প্রতীকী

ব্যক্তিস্বার্থে সাব-রেজিস্ট্রি অফিস স্থানান্তরের চেষ্টা

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলায় একজনের ব্যক্তিস্বার্থ হাসিলের জন্য সাব-রেজিস্ট্রি অফিস নিজ এলাকায় স্থানান্তর করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযাগ করেছেন স্থানীয়রা।

জানা যায়, উপজেলা সদরের নবকলস-ওয়াপদা এলাকায় দীর্ঘ প্রায় ৩০ বছর ধরে চলমান অবস্থায় থাকা সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস বরদিয়া নদী পাশ্ববর্তী নেওয়ার জন্য কাজী সুলতান আহম্মেদ সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাজারও মানুষের নিরাপত্তা ও দূর্ভোগের কথা ভেবে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসটি যেন স্থানান্তরিত করতে না পারে সে জন্য দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী (মায়া) বীর বিক্রম, এম.পি’র হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন উপজেলা স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির সভাপতি মোঃ সিদ্দিকুর রহমান সাদেক ও দলিল লেখক সমিতির সভাপতি মোঃ জিয়াউল মোস্তফা তালুকদার।

যেখানে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসটি স্থানান্তরিত করার পায়তারা করছে সেটি একটি নদী পার্শ¦বর্তী এলাকায়। মতলব বাজার থেকে ৬ কিলোমিটার দূরে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসটি হলে সর্বসাধারণের নানা সমস্যার সম্মূখীন হবে।

তারমধ্যে ক্রেতা-বিক্রেতাদের লেনদেনের নিরাপত্তার অভাব। এমনিতেই ওই এলাকায় চুরি, ছিনতাই, ডাকাতিসহ নানা ধরনের অপরাধ কর্মকান্ড ঘটে আসছে।

এছাড়া সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে প্রতিদিন অনেক টাকা টাকার বিনিময় হয়ে থাকে। বরদিয়া এলাকায় কোন ব্যাংকের শাখা না থাকায় পে-অর্ডার করার জন্য ৬ কিলোমিটার দূর থেকে মতলব বাজারের ব্যাংকে এসে টাকা পে-অর্ডার করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের জন্য নিরাপত্তা হীনতার আশঙ্কা রয়েছে।

ঢাকিরগাঁও গ্রামের বাসিন্দা জাকির হোসেন প্রধান জানান, জনগণের কল্যাণের জন্য ঢাকিরগাঁও এলাকায় আমি আমার জায়গা নিঃস্বার্থে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের জন্য দিতে প্রস্তুত রয়েছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা ভেন্ডার সমিতির সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান সাদেক জানান, ‘সর্বসাধারণের বৃহৎ স্বার্থে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসটি স্থানান্তরিত না করে বর্তমান অফিসের আশপাশ এলাকায় করার জন্য মন্ত্রী মহোদয়ের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।’

দলিল লেখক সমিতির সভাপতি জিয়াউল মোস্তফা তালুকদার জানান, দলিল লেখক ও ভেন্ডার সমিতিসহ স্থানীয় জনসাধারণের চাপের মুখে সাব-রেজিস্ট্রি অফিসটি ওই ব্যক্তির জায়গায় নেয়ার প্রক্রিয়া বন্ধ ছিল। হঠাৎ করে আবার তিনিই তার ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলের জন্য অফিসটি তার জায়গায় নেয়ার জন্য তৎপরতা চালিয়ে আসছে। এতে করে দলিল লেখক ও ভেন্ডার সমিতির নেতৃবৃন্দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

প্রতিবেদক- মাহফুজ মল্লিক
: আপডেট, বাংলাদেশ ১১: ৪০ পিএম, ২৯ আগস্ট ২০১৭, মঙ্গলবার
ডিএইচ

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মুসলিম যুবকের প্রেমে ব্যর্থ হয়েই সু চি ইসলামবিরোধী!

ইংল্যান্ডের ...