Home / রাজনীতি / সুষমার সফরের সঙ্গে সমন্বয় করে দেশে ফিরছেন খালেদা জিয়া
ফাইল ছবি

সুষমার সফরের সঙ্গে সমন্বয় করে দেশে ফিরছেন খালেদা জিয়া

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের বাংলাদেশ সফরের দিনক্ষণের সঙ্গে সমন্বয় করে দেশে ফিরতে চান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সে কারণেই সুষমার সফরের আগে তাঁর দেশে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা।

আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর ঢাকা সফরের কথা রয়েছে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। যদিও সরকারিভাবে এখনো দিনক্ষণ ঘোষণা করা হয়নি। তবে বিভিন্ন কূটনৈতিক সূত্রে প্রাপ্ত খবরে সফরের সম্ভাব্য ওই সময়ের কথাই জানা যায়।

ভারত-বাংলাদেশ যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) চতুর্থ ওই বৈঠকে যোগ দিতে সুষমা ঢাকা আসবেন। দুই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে এ ধরনের বৈঠক সাধারণত একবার দিল্লিতে হলে আরেকবার ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, চেয়ারপারসন চিকিৎসা শেষ করে শিগগিরই দেশে ফিরবেন। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সম্ভাবনার বিষয়ে তাঁরা বলেন, এখনো কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। দেখা যাক। লন্ডনের নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রও সুষমার সফরের আগে খালেদা জিয়ার দেশে ফিরে আসার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে।

আলাপকালে বিএনপির সিনিয়র অন্য দুই নেতা জানিয়েছেন, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসনের সম্ভাব্য সাক্ষাতের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কূটনীতিকদের মধ্যে যোগাযোগ শুরু হয়েছে। বিএনপির পক্ষ থেকেও যোগাযোগ রাখা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, আশা করছি দেখা হবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তাঁরা এও বলেন, সুষমার সঙ্গে বৈঠকের দিনক্ষণ বা সময়সূচি নির্ধারণ হওয়ার পরই খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার সময় চূড়ান্ত হবে। গতকাল পর্যন্ত ওই দিনক্ষণ ঠিক হয়নি বলেও জানান তাঁরা। বলেন, ১৫ অক্টোবরের আগে বা পরে খুব সম্ভবত তিনি দেশে ফিরে আসবেন।

আলাপকালে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থায়ী কমিটির সিনিয়র আরেক সদস্য বলেন, ‘খালেদা জিয়ার ঢাকা অবস্থানকালে তাঁর সঙ্গে সুষমা স্বরাজের দেখা না হলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ আবার এ নিয়ে অপরাজনীতি করবে। বলবে, বিএনপিকে ভারত গুরুত্ব দেয়নি। আমরা এ সুযোগ দিতে চাই না। ’ তাই সুষমার সফরকে বিবেচনায় রেখেই খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার বিষয়টি নির্ধারিত হবে বলে জানান ওই নেতা।

এর আগে ২০১৪ সালের জুন মাসে ঢাকা সফরের সময় সোনারগাঁও হোটেলে বৈঠক হয়েছিল খালেদা-সুষমার।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপারসনের পায়ের চিকিৎসা এখনো শেষ হয়নি। আগামিকাল ১২ অক্টোবর সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাৎ নির্ধারিত রয়েছে। ওই চিকিৎসকের পরামর্শের ওপর তাঁর ফেরা-না ফেরার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থাকলেও দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে আর দেরি না করে খালেদা জিয়ার ফেরা উচিত বলে বিএনপি নেতারা মনে করেন।

এছাড়া আগামি নির্বাচন তথা রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণেও সুষমা স্বরাজের সঙ্গে বৈঠকের গুরুত্ব ও তাৎপর্য রয়েছে বলে মনে করে বিএনপি।

গত ১৫ জুন চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যান খালেদা জিয়া। সেখানে চোখে অস্ত্রোপচারের পর এখন তাঁর পায়ের চিকিৎসা চলছে। কিন্তু দীর্ঘ সময় (প্রায় চার মাস) লন্ডনে থাকায় দলের ভেতরে-বাইরে এ নিয়ে এখন কিছুটা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। কেউ কেউ দেশের চলমান রাজনীতি ও বিভিন্ন ঘটনা-প্রবাহের সঙ্গে তাঁর লন্ডনে অবস্থানের যোগসূত্র মেলানোর চেষ্টা করছেন। সরকারি দল অনবরত বলে যাচ্ছে, লন্ডনে বসে খালেদা জিয়া ষড়যন্ত্র করছেন। ফলে সব কিছু মিলিয়ে তাঁর দেশে ফেরা এখন জরুরি হয়ে পড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

নিউজ ডেস্ক
: আপডেট, বাংলাদেশ ১১ :০০ এএম, ১১ অক্টোবর, ২০১৭ বুধবার
এইউ

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

mazor rafiq

‘যে জাতি সু-শৃঙ্খল নয় সে জাতি স্বাধীনতা রক্ষা করতে পারে না’

চাঁদপুর-৫ ...