Home / চাঁদপুর / কোরআন প্রতিযোগিতা ও আলেমদের সম্মানে ইফতার মাহফিল

কোরআন প্রতিযোগিতা ও আলেমদের সম্মানে ইফতার মাহফিল

চাঁদপুর বেগম জামে মসজিদে আলেমদের সম্মানে জেলা পরিষদ আয়োজনে কোরআন প্রতিযোগিতা ও আলেমদের সম্মানে সোমবার (১২ জুন) বিকেলে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতির বক্তব্যে চাঁদপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ ওচমান গনি পাটওয়ারী বলেছেন, ভোটারদের মূল্যবান রায় এবং চাঁদপুরের সর্বস্তরের মানুষের দোয়া ও ভালোবাসায় আমি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। বিশেষ করে আলেম-ওলামাগণ আমার জন্য অনেক দোয়া করেছেন। আমি আপনাদের সকলের কাছে আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। আমি যেন মানুষের সেবা করতে পারিন এবং তাদের আস্থা ও বিশ্বাস ধরে রাখতে পারি সেজন্য সবার দোয়া চাই। আমার দীর্ঘদিনের ইচ্ছে ছিল এই জেলার বিশিষ্ট আলেমদের সাথে একত্রিত হওয়ার। আল্লাহ আজকে আমাকে সেই সুযোগ করে দিয়েছেন। আজকে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের যে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে ইনশাল্লাহ আগামী দিনগুলোতেও এই আয়োজন অব্যাহত রাখা হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ফুলছোঁয়ার পীর হযরত মাওলানা মুফতি আবু সাঈদ।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন বেগম জামে মসজিদের খতিব হযরত মাওলানা মুফতি মাহবুবুর রহমান।

বাংলাদেশ বেতারের ভাষ্যকার হযরত মাওলানা এস এম আনওয়ারুল করীমের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা কওমী সংগঠনের সভাপতি হযরত মাওলানা মুফতি মো. সিরাজুল ইসলাম, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শরীফ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জি এম শাহীন, সাবেক সভাপতি বি এম হান্নান, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান ভূঁইয়া।

ইফতার মাহফিলে চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন মসজিদের খতিব, ইমাম, ইসলামী চিন্তাবিদ, বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত বেগম জামে মসজিদে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে চাঁদপুর জেলার ১১৬জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেন।

তিন বিভাগের বাছাইকৃত ৩০জন নিয়ে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠি হয়। প্রতি বিভাগে ৩জন করে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জন করেন। প্রথম স্থান অধিকারীদের ৫ হাজার টাকা, দ্বিতীয় স্থান অধিকারীদের ৩ হাজার টাকা ও তৃতীয় স্থান অধিকারীকে ২ হাজার টাকা করে পুরস্কার এবং সনদপত্র প্রদান করা হয়।

চূড়ান্ত পর্বের অন্যান্য প্রতিযোগীদের বিশেষ পুরস্কার এবং অংশগ্রহণকারী অন্য সকলকে শান্তনা পুরস্কার দেয়া হয়। প্রতিযোগিতার প্রধান বিচারক ছিলেন মমিন বাড়ি মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক হযরত মাওলানা হাফেজ মো. ফোরকান।

করেসপন্ডেন্ট
: আপডেট, বাংলাদেশ সম ১০: ৪০ পিএম, ১২ জুন ২০১৭, সোমবার
ডিএইচ

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

হাইমচরে প্রেমের টানে দু’সন্তান রেখে প্রবাসীর স্ত্রী উধাও

মোবাইলে ...